kalerkantho

শুক্রবার । ৭ মাঘ ১৪২৮। ২১ জানুয়ারি ২০২২। ১৭ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

কয়লার দাম বাড়ায় ভাটায় পোড়ানো হচ্ছে কাঠ

রাজবাড়ী প্রতিনিধি   

১ ডিসেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কয়লার দাম বাড়ায় ভাটায় পোড়ানো হচ্ছে কাঠ

মাদারীপুর সদর উপজেলার জাজিরায় মেসার্স বেপারী ব্রিকসে গাছ ও কাঠের স্তূপ। ছবি : কালের কণ্ঠ

এক বছরের ব্যবধানে কয়লার দাম প্রতি টনে বেড়েছে ১৫ হাজার টাকা পর্যন্ত। অর্থাৎ আড়াই গুণ বেড়েছে। দাম বেড়ে যাওয়ায় অনেক ভাটা মালিক ইট পোড়ানো শুরুই করতে পারেননি। অন্যদিকে বিকল্প পথ হিসেবে কেউ কেউ নিষেধাজ্ঞা ভেঙে কাঠ পুড়িয়ে ভাটায় ইট তৈরি করছে।

বিজ্ঞাপন

এই ইটভাটাগুলোর বিরুদ্ধে প্রশাসনের অভিযান চোখে পড়ছে না।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রাজবাড়ীতে ৮৩টি ইটভাটা রয়েছে। এর মধ্যে অর্ধেক ইটভাটা কাঠ পোড়ানো থেকে সরে এসে কয়লা দিয়ে ইট পোড়ানো শুরু করেছিল। কিন্তু প্রথম দিকে কয়লায় ইট পোড়ানো খরচ কম থাকলেও বর্তমানে কয়লার অস্বাভাবিক দাম বাড়ায় সংকট দেখা দিয়েছে।

ভাটা মালিক সূত্রে জানা গেছে, গত বছর শুরুতে প্রতি টন কয়লার দাম ছিল ৯ হাজার থেকে ১০ হাজার টাকার মধ্যে। কিন্তু বর্তমানে এর বাজারদর দাঁড়িয়েছে প্রতি টন ২৩ হাজার থেকে ২৪ হাজার টাকা। এতে কয়লায় ইট তৈরিতে অনেক বেশি খরচ হচ্ছে। এ  রকম ভাটায় প্রতি হাজার ইট তৈরিতে সাড়ে সাত হাজার থেকে আট হাজার টাকা খরচ হচ্ছে। তাতে লোকসানে পড়ছেন মালিকরা। এই পরিস্থিতিতে অনেক ইটভাটায় কাঠ দিয়ে ইট পোড়ানো হচ্ছে। তাদের হাজারে খরচ হচ্ছে পাঁচ হাজার থেকে ছয় হাজার টাকা।

এতে কাঠ পোড়ানো ভাটার দিকে ঝুঁকছেন অনেক মালিক। এভাবে চললে পরিবেশের ক্ষতি বাড়তেই থাকবে বলে মন্তব্য করেছেন সচেতন ব্যক্তিরা।

কয়লায় পোড়ানো ইএসবি, এসআইবি ও এফএবি ইটভাটার মালিক আবুল কালাম আজাদ, আজিবর সরদার ও কামাল মিয়া জানান, গত বছরের চেয়ে এ বছর প্রায় আড়াই গুণ বেড়েছে কয়লার দাম। এ কারণে ইট তৈরিতে অনীহা চলে আসছে। গত বছর যেখানে প্রতি টন কয়লা ৯ হাজার টাকার মধ্যে ছিল, এ বছর সেই কয়লা টনপ্রতি ১৫ হাজার টাকা বেড়ে যাওয়ায় কিনতে হচ্ছে ২৩ হাজার থেকে ২৪ হাজার টাকায়। এতে প্রতি হাজার ইট তৈরি করতে খরচ পড়ছে সাড়ে আট হাজার টাকারও বেশি। কিন্তু কাঠ দিয়ে পোড়ানো ইট তৈরিতে প্রতি হাজারে খরচ হচ্ছে পাঁচ হাজার থেকে ছয় হাজার টাকার মধ্যে।

রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম বলেন, ‘কোনো ইটভাটায় কাঠ পুড়িয়ে ইট তৈরি করা হলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। প্রয়োজনে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে আইনের আওতায় আনা হবে ভাটা মালিকদের। ’



সাতদিনের সেরা