kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৬ মাঘ ১৪২৮। ২০ জানুয়ারি ২০২২। ১৬ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

২ বছরের পুরনো তথ্য বাতায়নে

রংপুরে বিড়ম্বনায় জনসাধারণ ও সংবাদকর্মীরা

রংপুর অফিস   

২০ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



দুই বছরের পুরনো তথ্য থাকায় ডিজিটাল সেবা প্রাপ্তি থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন রংপুর জেলার সাধারণ মানুষ ও গণমাধ্যমকর্মীরা।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, অ্যাকসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রকল্পের আওতায় পরিচালিত হয় জাতীয় তথ্য বাতায়ন। জনগণের তথ্য অধিকার ও সরকারি দপ্তর থেকে সেবা প্রাপ্তির নিশ্চয়তার লক্ষ্যে প্রতিষ্ঠিত হয় তথ্য বাতায়ন। দেশের সব ইউনিয়ন, উপজেলা, জেলা, বিভাগ, অধিদপ্তর, মন্ত্রণালয়সহ প্রায় ২৫ হাজার সরকারি দপ্তরের রয়েছে নিজস্ব ওয়েবপোর্টাল।

বাতায়ন ঘেঁটে দেখা গেছে, বাংলাদেশ টেলি কমিউনিকেশন লিমিটেড (বিটিসিএল) রংপুরের উপমহাব্যবস্থাপক হিসেবে মোখলেছুর রহমানের নাম রয়েছে। অথচ তিনি প্রায় দুই বছর আগে অবসরে গেছেন।  তাঁর নাম-পদবিসহ ব্যক্তিগত মুঠোফোন নম্বর (ওয়েবসাইট) বাতায়নে রয়েছে।

এ বিষয়ে মোখলেছুর রহমান বলেন, ‘আমি প্রায় দুই বছর আগে অবসরে গেলেও ব্যক্তিগত মুঠোফোন নম্বরটি বাতায়নে থাকায় অনেকে আমাকে ফোন দিয়ে থাকে। এ নিয়ে আমি বিব্রত। বিষয়টি বর্তমান উপমহাব্যবস্থাপক তাজুল ইসলামকে জানালেও তাঁরা তথ্য আপডেট করেননি।’

এ বিষয়ে তাজুল ইসলাম বলেন, ‘আমি দেখেছি আপডেট করা হয়নি। আগামী সপ্তাহে আপডেট করব।’

বাতায়ন ঘেঁটে আরো দেখা গেছে, পুলিশ সুপার বিপ্লব কুমার সরকার রংপুর থেকে গত ১৫ নভেম্বর ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের তেজগাঁও বিভাগের ডিসি হিসেবে পদায়ন হন। কিন্তু পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে রংপুরের বাতায়নে এখনো তাঁর নাম রয়ে গেছে।

একইভাবে রংপুর কেন্দ্রীয় কারাগারের বাতায়নে ইমরান হোসেনকে ডেপুটি জেলার হিসেবে কর্মরত দেখানো হলেও তিনি চাকরি ছেড়ে দিয়েছেন। বর্তমানে তিনি কৃষি মন্ত্রণালয়ের অধীনে গোপালগঞ্জে মৃত্তিকা সম্পদ উন্নয়ন ইনস্টিটিউড অফিসে কর্মরত।

প্রায় এক মাস আগে ডা. আবু মো. জাকিরুল ইসলাম পদোন্নতি পেয়ে রংপুর স্বাস্থ্য বিভাগের পরিচালক হয়েছেন। এখনো তাঁকে গঙ্গাচড়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা হিসেবে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স গঙ্গাচড়া রংপুরের বাতায়নে দেখানো হচ্ছে।

গণমাধ্যমকর্মী মামুনুর রশীদ জানান, ‘খবরের বিভিন্ন তথ্য-উপাত্তের জন্য সরকারি অফিসের বাতায়নে বিভিন্ন কর্মকর্তার নম্বরে ফোন করলে বেশির ভাগ কর্মকর্তা জানান, হয় অবসরে গেছেন, নইলে বদলি হয়ে নতুন কর্মস্থলে যোগ দিয়েছেন, কিন্তু ওয়েবসাইটগুলোতে তথ্য হালনাগাদ না করার ফলে তথ্য সংগ্রহ করতে গেলে ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে।’

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও কলা অনুষদের ডিন তুহিন ওয়াদুদ বলেন, ‘জনগণের তথ্য প্রাপ্তির অধিকার নিশ্চিতে বিপুল অর্থ ব্যয়ে তৈরি জাতীয় তথ্য বাতায়নটি অনেকটা নামে রয়ে গেছে। সরকারি দপ্তর থেকে প্রদেয় সেবাগুলো প্রাপ্তির নিশ্চয়তা তৈরিতে নিয়মিত তথ্য হালনাগাদ করার বিকল্প নেই।’

এ বিষয়ে রংপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) এ ডব্লিউ রায়হান শাহ বলেন, ‘প্রতিটি সরকারি অফিস তাদের বাতায়ন নিজ উদ্যোগে আপডেট করে থাকে। যদি কেউ আপডেট না করে থাকে, তাহলে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করে তথ্য নিতে পারেন।’



সাতদিনের সেরা