kalerkantho

সোমবার । ১৪ মাঘ ১৪২৮। ১৭ জানুয়ারি ২০২২। ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

দুই নবজাতকের করুণ কাহিনি

পিরোজপুর (আঞ্চলিক) ও পীরগাছা (রংপুর) প্রতিনিধি   

১১ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্বাভাবিক প্রসব না হওয়ায় অন্তঃসত্ত্বা লিমা বেগমকে গত মঙ্গলবার রাত ১১টার দিকে রংপুরের কাউনিয়া উপজেলার হারাগাছ মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রে নিয়ে যায় পরিবারের লোকজন। কিন্তু ওই কেন্দ্রে তখন ঝুলছিল তালা। বাইরেই ছটফট করছিলেন লিমা। পরে কেন্দ্র ভবনের পাশে ঘাসের ওপর সন্তান প্রসব করেন ওই প্রসূতি। রাত ১টার দিকে মা ও নবজাতক মেয়েকে নিয়ে বাড়ি ফেরে স্বজনরা। লিমা হারাগাছ ইউনিয়নের চর নাজিরদহ মফিজপাড়া গ্রামের শাহাদত হোসেনের স্ত্রী।

ওই মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের ইনচার্জ পরিবারকল্যাণ পরিদর্শিকা শহরে থাকেন। হারাগাছ মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের ইনচার্জ পরিবারকল্যাণ পরিদর্শিকা জান্নাতুল ফেরদৌস বলেন, দুজন দাই-নার্সসহ তিনজন দায়িত্বে আছেন। ২৪ ঘণ্টা অন্তঃসত্ত্বাদের সেবা দেওয়ার কথা থাকলেও সম্ভব হয় না। তাই সপ্তাহে শনিবার থেকে বৃহস্পতিবার ছয় দিন সেবা দেওয়া হচ্ছে।

উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সহিদুল ইসলাম বলেন, মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের বাইরে ঘাসের ওপর সন্তান প্রসবের বিষয়টি দুঃখজনক।

পিরোজপুরে বিল পরিশোধে নবজাতককেই বিক্রির চেষ্টা : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় হাসপাতালে অস্ত্রোপচারের বিল পরিশোধ করতে না পেরে নবজাতককেই বিক্রি করে দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন মা-বাবা। মঙ্গলবার বিকেলে শহরের একটি বেসরকারি মাতৃসদন ও স্বাস্থ্যসেবা ক্লিনিকে এ ঘটনা ঘটে। বিষয়টি জানতে পেরে পুলিশ সেই নবজাতককে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। পরে ক্লিনিকের বিল পরিশোধের ব্যবস্থা করে ওই নবজাতককে আবার মা-বাবার কোলে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

নবজাতকের বাবা নুরনবী জানান, তিনি কৃষিকাজ করেন। স্ত্রীর স্বাভাবিক প্রসব না হওয়ায় হাসপাতালে আসতে বাধ্য হয়েছেন। কিন্তু অত টাকা দেওয়ার সাধ্য তাঁর নেই।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (মঠবাড়িয়া সার্কেল) মোহাম্মদ ইব্রাহীম বলেন, নবজাতককে মা-বাবার কাছে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে।



সাতদিনের সেরা