kalerkantho

সোমবার । ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৯ নভেম্বর ২০২১। ২৩ রবিউস সানি ১৪৪৩

প্রতীক বরাদ্দের আগেই নৌকার পোস্টার

শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি   

২৬ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রতীক বরাদ্দের আগেই নৌকার পোস্টার

শেরপুরের খানপুর ইউনিয়নে পোস্টার। ছবি : কালের কণ্ঠ

প্রতীক বরাদ্দ হয়নি। এর আগেই ডিজিটাল প্যানা-পোস্টার সাঁটিয়েছেন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী পরিমল দত্ত। আচরণবিধি লঙ্ঘন হলেও ব্যবস্থা নেননি বগুড়ার শেরপুর উপজেলার খানপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) নির্বাচনী কর্মকর্তা।

এর প্রতিকার চেয়ে গত রবিবার নির্বাচনী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন বর্তমান চেয়ারম্যান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী শফিকুল ইসলাম রাঞ্জু। লিখিত অভিযোগে তিনি উল্লেখ করেছেন, আগামী ১১ নভেম্বর ভোট। মনোনয়নপত্র উত্তোলন ও দাখিল সম্পন্ন হলেও প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়নি। বুধবার প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে। কিন্তু এর আগেই পরিমল দত্ত ডিজিটাল ব্যানার-পোস্টার সাঁটিয়ে প্রচার শুরু করেছেন। শালফা, ছাতিয়ানী, গজারিয়াসহ বিভিন্ন এলাকায় এসব ব্যানার-পোস্টার সাঁটানো হয়েছে।

শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘আমার কর্মী-সমর্থকদের ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে। আমাকে ভোট না দিতে হুমকি-ধমকি দেওয়া হচ্ছে।’

এসব অভিযোগ অস্বীকার করে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী পরিমল দত্ত জানান, ব্যানার-পোস্টার লাগানোর কথা নয়। প্রতীক বরাদ্দের দিন থেকে ওই সব লাগানোর কথা। এ ছাড়া প্রতিদ্বন্দ্বী কোনো প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের হুমকি-ধমকি দেওয়ার প্রশ্নই আসে না।

খানপুর ইউপির নির্বাচনী কর্মকর্তা মো. মাসুদ রানা সরকার জানান, প্রতীক বরাদ্দের আগে ডিজিটাল প্যানা ঝোলানো ঠিক না। সব প্রার্থীকে আচরণবিধি মেনে চলার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। এর পরও আচরণবিধি লঙ্ঘন করা হলে আইন অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।



সাতদিনের সেরা