kalerkantho

বুধবার । ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ১ ডিসেম্বর ২০২১। ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩

চকরিয়ায় নৌকা পেতে জালিয়াতি

ইউপি নির্বাচন

চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি   

২২ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নৌকার একক প্রার্থী হিসেবে রেজল্যুশন তৈরির পর জেলা আওয়ামী লীগের মাধ্যমে কেন্দ্রে পাঠিয়েছে ভুয়া কমিটি। এ ঘটনা কক্সবাজারের চকরিয়ার মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলার পশ্চিম বড় ভেওলা ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের। অভিযুক্ত রবিউল এহেছান লিটন জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি।

এর প্রতিকার চেয়ে গত বুধবার আওয়ামী লীগ সভাপতির কাছে লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে। ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি গিয়াস উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম খলিল স্বাক্ষরিত অভিযোগে বলা হয়েছে, ইউপি নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী নির্ধারণের জন্য গত ১৫ অক্টোবর কার্যনির্বাহী কমিটির সভা হয়। এতে সিদ্ধান্ত হয় তিনজনের নাম জেলা কমিটি বরাবর পাঠানো হবে। সেই হিসেবে মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বাবলা, ইউনিয়নের সভাপতি গিয়াস উদ্দিন ও মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক কাইছারুল হকের নামসহ সভার রেজল্যুশন জেলা আওয়ামী লীগের কাছে পাঠানো হয়। কিন্তু রবিউল এহেছান লিটন একটি ভুয়া কমিটি গঠনসহ তাঁকে একক প্রার্থী করা হয়েছে মর্মে রেজল্যুশন জেলা আওয়ামী লীগের কাছে জমা দেন। জেলা আওয়ামী লীগও সেই তথ্য যাচাই না করে তা কেন্দ্রে পাঠায়।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম খলিল জানান, প্রতারণা ও জালিয়াতির আশ্রয় নিয়ে ভুয়া কমিটি গঠন করে রেজল্যুশন জেলা কমিটির কাছে জমা দেওয়ার বিষয়টি জানার পর তিনি লিখিত অভিযোগ করেছেন।

সভাপতি গিয়াস উদ্দিন বলেন, ‘রবিউল এহেছান লিটন দলের কোনো পদ-পদবি, এমনকি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদস্যও নন। বিগত নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর বিরুদ্ধে কাজ করেছেন।’

কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি রবিউল এহেছান লিটন বলেন, ‘যাঁরা নিজেদের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পরিচয় দিয়ে কেন্দ্রের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন, তাঁরা পশ্চিম বড় ভেওলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কেউ নন। তাঁদের কমিটির বৈধতা নেই। ওই কমিটি গঠনের সময় জেলা আওয়ামী লীগের কাছ থেকে কোনো অনুমতি নেওয়া হয়নি। তাঁদের কমিটির বৈধতা যেহেতু নেই, অভিযোগেরও ভিত্তি নেই।’ তিনি দাবি করেন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বৈধ কমিটির সভাপতি হচ্ছেন এরফান উদ্দিন চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা কামাল।

তবে মাতামুহুরী সাংগঠনিক উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বাবলা বলেন, ‘সম্মেলনের মাধ্যমে গিয়াস উদ্দিন-ইব্রাহিমের কমিটি গঠিত। এরা বৈধ। বাকিরা অবৈধ।’



সাতদিনের সেরা