kalerkantho

রবিবার । ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৮ নভেম্বর ২০২১। ২২ রবিউস সানি ১৪৪৩

পাকুন্দিয়ায় বর্তমান ও সাবেক এমপির সমর্থকদের সংঘর্ষ

পাকুন্দিয়া (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি   

১৭ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পাকুন্দিয়ায় বর্তমান ও সাবেক এমপির সমর্থকদের সংঘর্ষ

কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটি বাতিলের দাবিতে গতকাল সড়ক অবরোধ ও বিক্ষোভ করেন এমপি নূর মোহাম্মদের সমর্থকরা। ছবি : কালের কণ্ঠ

কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটির সভা আহবান করায় গত শুক্রবার রাতে দুই পক্ষের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়েছে। উপজেলার পাটুয়াভাঙ্গা ইউনিয়নের দরগাবাজার এলাকায় বর্তমান সংসদ সদস্য নূর মোহাম্মদ এবং সাবেক সংসদ সদস্য সোহরাব উদ্দীনের সমর্থক নেতাকর্মীদের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে পুলিশসহ কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ টিয়ার শেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। এই ঘটনায় উভয় পক্ষের ১০ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

এদিকে উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটি বাতিলের দাবিতে গতকাল শনিবার মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন নূর মোহাম্মদের সমর্থক নেতাকর্মীরা। সকাল ১১টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত উপজেলার পুলেরঘাট বাজার এলাকার কিশোরগঞ্জ-ভৈরব আঞ্চলিক মহাসড়ক অবরোধ করে রাখেন তাঁরা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, আন্দোলনকারীরা রাস্তা অবরোধ করে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করেন। এতে সড়কের দুই পাশে কয়েক শ গাড়ি আটকা পড়ে। পরে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিলে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, গত ৯ সেপ্টেম্বর সাবেক এমপি সোহরাব উদ্দীনকে আহ্বায়ক করে ৬৭ সদস্যের উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটির অনুমোদন দেয় জেলা শাখা। এর পর থেকেই এই কমিটি বাতিলের দাবিতে দফায় দফায় প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ সমাবেশ করে আসছেন নূর মোহাম্মদের সমর্থক নেতাকর্মীরা।

সোহরাব উদ্দীন বলেন, ‘বর্তমান এমপির সমর্থকরা আমাদের কমিটির সভা বানচাল করতে এ হামলা চালায়। আমার পক্ষের অন্তত ১০ জন কর্মী আহত হয়েছে। কয়েকজনকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে।’

বর্তমান এমপি নূর মোহাম্মদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে তাঁর সমর্থক জেলা শ্রমিক লীগের উপদেষ্টা আতাউল্লাহ সিদ্দিক মাসুদ বলেন, ‘সোহরাব একজন বিতর্কিত ব্যক্তি। তাঁকে আমরা উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক হিসেবে মানি না।’



সাতদিনের সেরা