kalerkantho

রবিবার । ১ কার্তিক ১৪২৮। ১৭ অক্টোবর ২০২১। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

সঞ্চয়েও ভোগান্তি

মনোহরদী পোস্ট অফিসে টাকা ছাড়া মেলে না সেবা

মনোহরদী (নরসিংদী) প্রতিনিধি   

২১ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘পোস্ট অফিসে তিন বছর মেয়াদে ১৮ লাখ টাকা আমানত রেখেছিলাম। মেয়াদ শেষে তিন মাস পার হলেও টাকা দিই-দিচ্ছি বলে ঘোরাতে থাকে। অফিসের ঝাড়ুদার সেলিম পোস্টমাস্টারের কথা বলে আমার কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা ঘুষ নিয়েছে। (কিন্তু) এখনো টাকা পাইনি।’ এই অভিযোগ গ্রাহক চান মিয়ার। সম্প্রতি নরসিংদীর মনোহরদী উপজেলা পোস্ট অফিসে গেলে কথা হয় তাঁর সঙ্গে। এ সময় আরো অনেকে অভিযোগ করে, এখানে টাকা ছাড়া কোনো সেবা মেলে না। উল্টো সময়ক্ষেপণ, হয়রানি করা হয়। অনিয়মই যেন এই অফিসের নিয়ম।

জানা যায়, সরকারি-বেসরকারি ব্যাংকগুলো আমানতের ওপর লভ্যাংশ কমিয়ে দেওয়ায় অনেকেই পোস্ট অফিসের দিকে ঝুঁকেছে। কিন্তু অভিযোগ উঠেছে, সঞ্চয় করতে গেলে বা মেয়াদ শেষে লভ্যাংশ আনতে গেলে উপজেলা পোস্ট অফিসের লোকজন গ্রাহকদের টাকার ওপর ভাগ বসান। পোস্টমাস্টারের প্যাকার কাম মেইল ক্যারিয়ার সিরাজ উদ্দিন ও পরিচ্ছন্নতাকর্মী সেলিমকে পাঁচ হাজার থেকে সাত হাজার টাকা ঘুষ দিতে হয়।

উপজেলা পোস্ট অফিসের আরেক গ্রাহক রোজিনা আক্তার অভিযোগ করেন, পাঁচ বছর মেয়াদে পাঁচ লাখ টাকা আমানত রেখেছেন। কিন্তু প্রতি মাসে লভ্যাংশ তুলতে গেলে ৫০০ থেকে এক হাজার টাকা দিতে হয় পোস্টমাস্টারের সহযোগীদের।

কলেজ শিক্ষক প্রমোদ সাহাজীর অভিযোগ, ‘আমানতের দুই লাখ টাকা তুলতে হবিগঞ্জ থেকে এ পর্যন্ত পাঁচ দিন এসেছি; কিন্তু টাকা দেওয়া হয়নি।’ এ ছাড়া হাসনারা, রহিমা আক্তার ও তৌহিদুল ইসলাম অভিযোগ করেন, সঞ্চয়ের টাকার লাভের অংশ তুলতে গেলে সিরাজ ও সেলিমকে আগে ঘুষ দিতে হয়। না হলে তাঁরা হয়রানি করেন।

তবে গ্রাহকদের কাছ থেকে টাকা নেওয়ার কথা অস্বীকার করেছেন সিরাজ। আরেক অভিযুক্ত সেলিম বলেন, ‘আমি কারো কাছ থেকে টাকা নিই না। সময়মতো টাকা না পেলে গ্রাহকরা আমাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলেন।’

উপজেলা পোস্টমাস্টার মো. মিরাজ উদ্দিন বলেন, ‘অফিসের কেউ টাকা নেয়, সেটা আমার জানা নেই। তবে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।’

জেলা পোস্ট অফিসের পরিদর্শক আনজু মনোয়ারা বলেন, ‘মনোহরদী পোস্ট অফিসে অনিয়ম ও ঘুষ লেনদেনের বিষয়টি (আমার) জানা নেই। খোঁজখবর নিয়ে অনিয়মের সত্যতা পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

জেলা পোস্ট অফিসের পোস্টমাস্টার বিল্লাল হোসেন বলেন, ‘গ্রাহকরা লিখিত অভিযোগ দিলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’



সাতদিনের সেরা