kalerkantho

বুধবার । ৭ আশ্বিন ১৪২৮। ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৪ সফর ১৪৪৩

কলেজছাত্রকে পিটিয়ে হত্যা

মনোহরদী (নরসিংদী) প্রতিনিধি   

২৮ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কলেজছাত্রকে পিটিয়ে হত্যা

নিহত শ্রাবণ

নরসিংদীর মনোহরদীতে শ্রাবণ মিয়া (১৯) নামের এক কলেজছাত্রকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সময় শ্রাবণের সঙ্গে থাকা তাঁর মামা সাখাওয়াত হোসেনও (২৫) গুরুতর আহত হয়েছেন। গত সোমবার রাতে উপজেলার একদুয়ারিয়া ইউনিয়নের কামাল আলগী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় গতকাল সকালে হৃদয় ও মৃদুল নামের দুজনকে আটক করেছে পুলিশ। নিহত শ্রাবণ কামাল আলগী গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে। তিনি শিবপুর সরকারি শহীদ আসাদ কলেজের স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ছিলেন।

নিহতের পরিবার ও পুলিশ জানায়, গত রবিবার পাশের কাপাসিয়া উপজেলার সনমানিয়া গ্রামের আসাদ মিয়ার ছেলে হৃদয় মিয়ার নেতৃত্বে ৭০-৮০ জন মিলে শীতলক্ষ্যা নদীতে ভ্রমণের প্রস্তুতি নেন। নৌকায় ওঠার পূর্ব মুহূর্তে শিবপুর উপজেলা সহকারী কমিশনারের (ভূমি) নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। এ সময় ৩২ জনকে ৫০০ টাকা করে জরিমানার পাশাপাশি ভ্রমণ বন্ধ করা হয়। এ ঘটনার পর কামাল আলগী এলাকার ইয়াছিন ও বায়েজিদ ভ্রমণের চাঁদা ফেরত চান। এ সময় টাকা ফেরত দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন হৃদয়। বিষয়টি তাঁদের বন্ধু শ্রাবণকে জানানো হলে শ্রাবণ হৃদয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করেন।

পরে হৃদয়ের কথামতো গত সোমবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে মোটরসাইকেলযোগে শ্রাবণ তাঁর দূরসম্পর্কের মামা সাখাওয়াতকে সঙ্গে নিয়ে একদুয়ারিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সংলগ্ন জুয়েলের দোকানের সামনে যান। এ সময় পূর্বপরিকল্পনা মতো হৃদয়, রান্ধনদিয়া গ্রামের জাকির হোসেনের ছেলে মৃদুল মিয়া সঙ্গীয় দলবল নিয়ে শ্রাবণ ও সাখাওয়াতের ওপর হামলা চালান। সুযোগ বুঝে সাখাওয়াত দৌড়ে পালিয়ে যান। একা পেয়ে শ্রাবণকে মাটিতে ফেলে রক্তাক্ত জখম করেন হামলাকারীরা। এ সময় শ্রাবণের ডাকচিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসে। পরে উদ্ধার করে শিবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

মনোহরদী থানার ওসি মোহাম্মদ আনিচুর রহমান বলেন, ‘ময়নাতদন্তের জন্য লাশ নরসিংদী মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহতের পিতা বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন। এ ঘটনায় দুজনকে আটক করা হয়েছে।’



সাতদিনের সেরা