kalerkantho

শনিবার । ৯ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৪ জুলাই ২০২১। ১৩ জিলহজ ১৪৪২

বৃষ্টিতে ডুবে গেছে দুর্যোগ সহনীয় ঘর

সরিষাবাড়ীতে ২১ শাজাহানপুরে ৯ পরিবার দুর্ভোগে

শাজাহানপুর (বগুড়া) ও সরিষাবাড়ী (জামালপুর) প্রতিনিধি   

২৫ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বৃষ্টিতে ডুবে গেছে দুর্যোগ সহনীয় ঘর

জামালপুরের সরিষাবাড়ীর কড়বাড়ী এলাকায় আশ্রয়ণ প্রকল্পের ২১টি ঘর পানিতে ডুবে গেছে। ছবি : কালের কণ্ঠ

বগুড়ার শাজাহানপুর উপজেলার আড়িয়া ইউনিয়নের মানিকদিপা পলিপাড়া এলাকায় গৃহহীনদের দেওয়া দুর্যোগ সহনীয় ঘর পানিতে ডুবে গেছে। বৃষ্টির পানিতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়ে ঘরে পানি ঢুকে পড়ায় দুর্ভোগে পড়েছে ৯টি পরিবার।

এ ছাড়া জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলার মহাদান ইউনিয়নের কড়বাড়ী এলাকায় আশ্রয়ণ প্রকল্পের ২১টি ঘর পানিতে ডুবে গেছে। এতে তারা অন্যের বাড়ি ও রাস্তার ওপর মানবেতর জীবনযাপন করছে। সাইতান বিলের মাঝখানে নির্মাণ করায় এ ঘরগুলো বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে গেছে বলে জানায় বাসিন্দারা।

শাজাহানপুরে ঘর পাওয়া হযরত আলী জানান, নিচু জায়গায় ঘর নির্মাণ করায় এই অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। এখন ঘর ছেড়ে তাদের আবার রাস্তায় অবস্থান নিতে হচ্ছে।

শাজাহানপুর উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের কাবিটা প্রকল্পের অর্থায়নে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ অধীনে প্রথম পর্যায়ে মানিকদিপা পলিপাড়া এলাকায় খাসজমিতে গৃহহীন ৯টি পরিবারের জন্য এসব ঘর নির্মাণ করা হয়। ১৫ লাখ ৩৯ হাজার টাকা বরাদ্দে নির্মিত ঘরগুলো গত ডিসেম্বরে হস্তান্তর করা হয়। প্রকল্পের সভাপতি তখনকার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাহমুদা পারভীন ও প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) আব্দুল জব্বারের অদূরদর্শিতার কারণেই এই দুর্ভোগের সৃষ্টি হয়েছে বলে অভিযোগ করে অনেকে।

তবে পিআইও আব্দুল জব্বার দাবি করেন, ‘নিচু জমি হওয়ায় ডিজাইনের চেয়েও তিন ফুট উঁচু করে ঘর নির্মাণ করা হয়েছে। তা ছাড়া ডিজাইনে মাটি কাটার বরাদ্দ না থাকলেও সেখানে মাটি কাটা হয়েছে।’

বর্তমান ইউএনও আসিফ আহমেদ জানান, সেখানে পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় বৃষ্টির পানিতে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করা এবং অনাহারে থাকা মানুষদের খাবার দেওয়া হয়েছে। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ ও প্রকৌশলীর সঙ্গে কথা বলে স্থায়ী সমাধান করা হবে বলেও জানান তিনি।