kalerkantho

রবিবার । ১৭ শ্রাবণ ১৪২৮। ১ আগস্ট ২০২১। ২১ জিলহজ ১৪৪২

খুলনায় রেকর্ড মৃত্যু

তবে ২৪ ঘণ্টায় মাগুরায় শনাক্ত শূন্য

খুলনা অফিস   

২৪ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



খুলনায় রেকর্ড মৃত্যু

করোনা আক্রান্ত আব্দুল জলিলের (৫৫) শ্বাসকষ্ট দেখা দেওয়ায় গতকাল সকালে যশোরের কেশবপুর থেকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের আওতাভুক্ত ১৩০ শয্যার করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। অ্যাম্বুল্যান্সে হাসপাতালের সামনে এক ঘণ্টা অপেক্ষার পর সুযোগ মেলে ভর্তির। ছবি : কালের কণ্ঠ

করোনা সংক্রমণে খুলনা বিভাগে ফের এক দিনে রেকর্ডসংখ্যক মৃত্যুর ঘটনা ঘটল। গত ২৪ ঘণ্টায় এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিভাগে ৩২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এই সময়ে বিভাগে নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৯০৩ জনের। তবে মাগুরা জেলায় গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন কোনো রোগী শনাক্ত হয়নি। গতকাল বুধবার দুপুরে বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক ডা. রাশেদা সুলতানা এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

অন্যদিকে খুলনা জেলায় ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে খুলনার বাসিন্দা আটজন।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগের মধ্যে খুলনায় সর্বোচ্চ আটজন, ঝিনাইদহে সাতজন, চুয়াডাঙ্গায় পাঁচজন, কুষ্টিয়ায় চারজন, বাগেরহাটে তিনজন, মেহেরপুরে দুজন এবং সাতক্ষীরা, যশোর ও নড়াইলে একজন করে মারা গেছে।

খুলনা বিভাগের মধ্যে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় চুয়াডাঙ্গায়; গত বছরের ১৯ মার্চ। করোনা সংক্রমণের শুরু থেকে গতকাল সকাল পর্যন্ত বিভাগের ১০ জেলায় মোট শনাক্ত হয়েছে ৪৭ হাজার ৮৭৮ জন। আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮৯৬ জনে। তবে এ সময় সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে ৩৫ হাজার ১৭৫ জন।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের জেলাভিত্তিক করোনাসংক্রান্ত তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যায়, খুলনা জেলায় ২৪ ঘণ্টায় বিভাগের মধ্যে সর্বোচ্চ মৃত্যু ও শনাক্ত হয়েছে। মারা গেছে আটজন এবং করোনা শনাক্ত হয়েছে ৩০৫ জনের। জেলায় এ পর্যন্ত মোট করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৩ হাজার ৫৬৯ জনের। মারা গেছে ২২৮ জন।

অন্যদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে কুষ্টিয়ায় ১২২, যশোরে ১২১, ঝিনাইদহে ১১৭, চুয়াডাঙ্গায় ৬৪, বাগেরহাটে ৬০, সাতক্ষীরায় ৬০, মেহেরপুরে ৩৫ ও নড়াইলে ১৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তবে মাগুরায় ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে কোনো রোগী শনাক্ত হয়নি।

খুলনা করোনা হাসপাতালের ফোকাল পারসন ডা. সুহাস রঞ্জন হালদার জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা হাসপাতালে রেড জোনে ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় নতুন করে ভর্তি হয়েছে ২২ জন, সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে ১৮ জন। এ ছাড়া আইসিইউতে রয়েছে ২০ জন। গতকাল সকাল পর্যন্ত খুলনার ১৩০ শয্যা করোনা হাসপাতালে ১১৭ জন চিকিৎসাধীন রয়েছে।

অন্যদিকে খুলনা জেনারেল হাসপাতালে একজন করোনা রোগীর মৃত্যু হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ২২ জন রোগী ভর্তি হয়েছে। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে তিনজন। এ ছাড়া বেসরকারি গাজী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে গত ২৪ ঘণ্টায় চিকিৎসাধীন ছয়জন করোনা রোগীর মৃত্যু হয়েছে। গতকাল সকাল সাড়ে ৯টা পর্যন্ত ৮১ জন রোগী চিকিৎসাধীন। এর মধ্যে ছয়জন আইসিইউতে।

খুলনা মেডিক্যাল কলেজের উপাধ্যক্ষ ডা. মেহেদী নেওয়াজ জানান, খুমেকের পিসিআর মেশিনে মঙ্গলবার ৫৬৪ জনের নমুনা পরীক্ষায় ২২৪ জনের করোনা পজিটিভ এসেছে। শনাক্তের হার প্রায় ৪০ শতাংশ।

এদিকে দ্বিতীয় দিনের মতো খুলনা জেলা ও মহানগরে কঠোর লকডাউন অব্যাহত রয়েছে। গতকালও নগরীসহ জেলায় সব ধরনের যানবাহন ও মানুষ চলাচল সীমিত ছিল। নগরীর মোড়ে মোড়ে পুলিশ পাহারা দিয়েছে। শপিং মল, বাণিজ্যিক কেন্দ্রও বন্ধ রয়েছে। দুপুর ২টা পর্যন্ত নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দোকান খোলা থাকলেও তা ছিল প্রশাসনের নজরদারিতে।



সাতদিনের সেরা