kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৯ শ্রাবণ ১৪২৮। ৩ আগস্ট ২০২১। ২৩ জিলহজ ১৪৪২

ভিজিএফের টাকা না দিয়ে সই নিলেন ইউপি চেয়ারম্যান

নাটোর প্রতিনিধি   

১৭ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নাটোরের লালপুরে গত ঈদুল ফিতর উপলক্ষে বরাদ্দ বিশেষ ভিজিএফের নগদ অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে আড়বাব ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফার বিরুদ্ধে। তালিকায় নাম থাকলেও টাকা দেওয়া হয়নি এমন বেশ কয়েকজন ভুক্তভোগী সম্প্রতি বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। ঢাকায় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা উপপরিচালক বরাবর দেওয়া অভিযোগের অনুলিপি নাটোরের জেলা প্রশাসক ও লালপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে দেওয়া হয়েছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ওই ইউনিয়নে ২০২০-২০২১ অর্থবছরে ৫০০ দুস্থ ও অসহায় ব্যক্তির মধ্যে ৫০০ টাকা করে দেওয়ার জন্য দুই লাখ ৫০ হাজার টাকা বরাদ্দ হয়। ৫০০ জনের তালিকায় নাম আছে এমন ৫১ জনের টাকা না দিয়েই আত্মসাৎ করেন চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা। এ ছাড়া একই সময়ে আরো এক হাজার ৫৪১ জনের নামে ৪৫০ টাকা করে বরাদ্দ হয়। সেখান থেকেও ৭৭ জনকে টাকা না দিয়ে আত্মসাৎ করেছেন চেয়ারম্যান।

মোহাম্মদ আলী নামে এক ভুক্তভোগী বলেন, তালিকায় নাম থাকলেও তিনি কোনো টাকা পাননি। চেয়ারম্যান লোকজন নিয়ে এসে ‘টাকা পেয়েছি’ লেখা কাগজে জোর করে সই নিয়েছেন। এ কথা কাউকে না বলতে শাসিয়েও গেছেন।

তবে চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘একটি মহল তাঁর সম্মান ক্ষুণ্ন করতে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে এই ধরনের অভিযোগ করেছেন। কোনো অনিয়ম করা হয়নি।’

লালপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) শাম্মী আক্তার বলেন, ভুক্তভোগীরা যেহেতু দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা উপপরিচালক বরাবর অভিযোগ দিয়েছেন তাই ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশানুযায়ী পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।



সাতদিনের সেরা