kalerkantho

শুক্রবার । ২২ শ্রাবণ ১৪২৮। ৬ আগস্ট ২০২১। ২৬ জিলহজ ১৪৪২

খুলনায় উপজেলা পর্যায়ে মিলছে না চিকিৎসাসেবা

খুলনা অফিস   

১৬ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



খুলনায় উপজেলা পর্যায়ে মিলছে না চিকিৎসাসেবা

করোনা সংক্রমণের দেড় বছরেও খুলনায় উপজেলা পর্যায়ে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সুবিধা পাচ্ছে না কোভিড-১৯ আক্রান্ত ব্যক্তিরা। অভিযোগ রয়েছে, পর্যাপ্ত বরাদ্দ ও চিকিৎসা সরঞ্জাম না থাকায় যথাযথ সেবা দিতে পারছেন না চিকিৎসকরা। এদিকে গতকাল মঙ্গলবার সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, খুলনায় পরীক্ষার তুলনায় শনাক্তের হার ছিল ৩০ শতাংশ। ওই দিন খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মারা যায় ছয়জন করোনা আক্রান্ত রোগী। বর্তমানে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ ডেডিকেটেড ইউনিটে ভর্তি আছে ১৫৪ জন। তাদের মধ্যে রেড জোনে ৮৪ জন, ইয়োলো জোনে ২৭, এইচডিইতে ২০ জন ও আইসিইউতে ২০ জন চিকিৎসা নিচ্ছে।

জেলার ফুলতলা উপজেলার দামোদর ইউনিয়নে করোনা আক্রান্ত হয়ে গত ২ জুন মারা যান তুষার সরকার। নিহত তুষার সরকারের ভাইপো তপু সরকার বলেন, ‘কাকার যেদিন করোনা পজিটিভ আসে, সেদিন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক কোনো রকম একটি ব্যবস্থাপত্র দিয়ে ছেড়ে দেন। পরে তাঁর অক্সিজেন সংকট হলে নিরুপায় হয়ে কাকাকে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করলেও সেখানে তিনি মারা যান। এখনো কাকিমা করোনা পজিটিভ হয়ে বাড়িতে চিকিৎসা নিচ্ছেন।’

ফুলতলা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. জেসমিন আরা হাসপাতালে চিকিৎসা সংকটের বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, ‘করোনা রোগীদের চিকিৎসার উন্নত ব্যবস্থা না থাকায় আমাদের গুরুতর রোগীদের খুলনা মেডিক্যালে পাঠাতে হচ্ছে।’ শুধু ফুলতলাই নয়, জেলার পাইকগাছা ছাড়া অন্য আট উপজেলায় যথাযথ করোনা চিকিৎসা মিলছে না। খুলনার সিভিল সার্জন ডা. নিয়াজ মোহাম্মদ বলেন, বেশির ভাগ মানুষ উপজেলায় চিকিৎসা না নিয়ে খুলনায় চিকিৎসা করতে চলে আসে। ফলে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রোগীদের ভিড় থাকছে বেশি।



সাতদিনের সেরা