kalerkantho

রবিবার । ৬ আষাঢ় ১৪২৮। ২০ জুন ২০২১। ৮ জিলকদ ১৪৪২

গলাচিপায় চুরির গুজব রটিয়ে ছয়জনকে পিটুনি

গলাচিপা (পটুয়াখালী) ও দেবীদ্বার (কুমিল্লা) প্রতিনিধি   

৯ মে, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পটুয়াখালীর গলাচিপায় বাগবিতণ্ডার এক পর্যায়ে গরুচোরের গুজব রটিয়ে এক পরিবারের ছয় সদস্যকে পিটিয়ে আহত করা হয়েছে। গত শুক্রবার রাতে উপজেলার রামনাবাদ নদীর গজালিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আহতদের গলাচিপা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে গজালিয়ার সাবেক ইউপি সদস্যসহ চারজনকে আটক করেছে পুলিশ। অন্যদিকে আটজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতপরিচয় ৬০-৭০ জনের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

গলাচিপা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আতিকুল ইসলাম জানান, পটুয়াখালীর লোহালিয়া এলাকার হাসেম খাঁ পরিবারের ছয় সদস্যকে নিয়ে মাছ শিকার শেষে ট্রলারযোগে বাড়ি ফিরছিলেন। শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে রামনাবাদ নদীর ডাকুয়া এলাকার কাছে একটি মাছ ধরা জালে তাঁদের ট্রলারের পাখা আটকে যায়। এ নিয়ে ডাকুয়ার ওই জেলের সঙ্গে তর্কাতর্কি হয়। এক পর্যায়ে ওই জেলে গরুচোর বলে ডাকচিত্কার দিলে হাসেম খাঁর ট্রলার আটক করে স্থানীয়রা। এ সময় গণপিটুনিতে হাসেম খাঁ (৬৫), শাহাবুদ্দিন (৩৫), শহিদুল (৩০), বাহাদুর (২৮), ছিদ্দিক (৪৫) ও সেন্টু (২০) গুরুতর আহত হন। খবর পেয়ে গজালিয়ার চরচন্দ্রাইল এলাকা থেকে উদ্ধার করে তাঁদের চিকিত্সার জন্য গলাচিপা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

এদিকে কুমিল্লার দেবীদ্বারে চুরির অভিযোগে ঘুমন্ত কিশোরকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত শুক্রবার রাতে উপজেলার সুলতানপুর ইউনিয়নের বক্রিকান্দি গ্রামের জমির উদ্দিন মুন্সীর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। জানা গেছে, স্থানীয় মাছ চাষি মফিজুল ইসলামের অভিযোগের ভিত্তিতে একই এলাকার ইউনুছ মিয়ার ছেলে হাফেজিয়া মাদরাসার ছাত্র ইসমাইল হোসেন ওরফে আল-আমিনকে (১৭) শুক্রবার রাতে তুলে আনেন গ্রাম্য সালিসকারীরা। পরে তার বিরুদ্ধে চুরির অভিযোগ তুলে পিটিয়ে মারাত্মক আহত করা হয়। স্থানীয় ইউপি সদস্য সামসুল হক ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।