kalerkantho

শনিবার । ২৫ বৈশাখ ১৪২৮। ৮ মে ২০২১। ২৫ রমজান ১৪৪২

অন্তঃসত্ত্বা কুলসুমের যুদ্ধ

জলঢাকা (নীলফামারী) প্রতিনিধি   

১৬ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অন্তঃসত্ত্বা কুলসুমের যুদ্ধ

নীলফামারীর জলঢাকায় মাটির ডালি মাথায় নিয়ে কর্মসৃজনের কাজ করছেন অন্তঃস্বত্বা কুলসুম (ডানে)। ছবি : কালের কণ্ঠ

কুলসুম, ৯ মাসের অন্তঃসত্ত্বা এই নারীকে দিয়ে দ্বিতীয় পর্যায়ে অতি দরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচির (ইজিপিপি) আওতায় মাটি কাটানো হচ্ছে। একই কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে শিশুদেরও। সম্প্রতি সরেজমিনে নীলফামারীর জলঢাকার গোলনা ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের চিড়াভিজা গ্রামের সর্দারপাড়ায় এই দৃশ্য দেখা গেছে।

কুলসুম বলেন, ‘কী করব? অভাবের সংসার। তা ছাড়া বদলি দেওয়ার মতো আমার কেউ নেই। বড় ছেলের বয়স ১২, আরেকটি ছোট। আর স্বামী? সে তো দিনমজুর।’ কুলসুমের স্বামী শাহজাহান স মিলে দিনমজুরি করেন বলে জানা গেছে।

ছুুটি নিচ্ছেন না কেন—এই প্রশ্ন করা কুলসুম বলেন, ‘না, আমাদের কোনো ছুুটি নেই। মেম্বার ও ছাররা  বলেছেন, প্রতিদিন কাজে আসতে হবে। না হলে অনুপস্থিত দেবেন, এমনকি নামও কাটা যেতে পারে।’

এ বিষয়ে জানতে গোলনা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান কামরুল আলম কবীরের সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাঁকে পাওয়া যায়নি। তবে ইউপি সদস্য মো. আনার হোসেন বলেন, ‘উনি (কুলসুম) বদলি কাউকে দিতে পারছেন না। তাঁর ছেলেকে আসতে বলেছি, সে-ও আসে না। তাহলে আমি কী করব?’

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কার্যালয়ের উপসহকারী প্রকৌশলী হাফিজুর রহমান বলেন, ‘আমরা তো কোনো অন্তঃসত্ত্বা নারীকে কাজে আসতে বলিনি।’

অন্যদিকে বিষয়টিকে অমানবিক বলে উল্লেখ করেছেন উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) মইনুল হক।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাহবুব হাসান বলেন, ‘বিষয়টি আমার জানা নেই। তবে এমনটি হওয়া ঠিক নয়।’



সাতদিনের সেরা