kalerkantho

শুক্রবার। ৩১ বৈশাখ ১৪২৮। ১৪ মে ২০২১। ০২ শাওয়াল ১৪৪২

বিশ্বাস চেয়ারম্যানে প্রশাসনের অবিশ্বাস

রাজবাড়ী সদর উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে খাসজমি দখলে সহযোগিতার অভিযোগ

রাজবাড়ী প্রতিনিধি   

১১ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বিশ্বাস চেয়ারম্যানে প্রশাসনের অবিশ্বাস

রাজবাড়ী সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ইমদাদুল হক বিশ্বাসের বিরুদ্ধে খাসজমি দখলে সহযোগিতা করার অভিযোগ উঠেছে। এ দখলে বাধা দেওয়ায় সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফাহমি মো. সায়েফ ও সহকারী কমিশনার—ভূমি (এসি ল্যান্ড) আরিফুর রহমানকে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে তাঁর বিরুদ্ধে।

স্থানীয় প্রশাসন এরই মধ্যে ওই চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে অভিযোগ পাঠিয়েছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে স্থানীয় সরকার শাখার ঢাকা বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে।

কালের কণ্ঠ ওই অভিযোগের একটি কপি সংগ্রহ করেছে। এতে দেখা গেছে, রাজবাড়ী সদর উপজেলার বসন্তপুর ইউনিয়নের উদয়পুর বাজারের প্রায় দেড় শতাংশ খাসজমিতে পাকা ঘর তোলার চেষ্টা করে একটি চক্র। ওই জমির আনুমানিক দাম ৩০ লাখ টাকা। বিষয়টি জেনে সেখানে অভিযান চালান সহকারী কমিশনার (ভূমি) আরিফুর রহমান। তিনি সে সময় প্রাচীর ভেঙে দেওয়ার পাশাপাশি ওই জমিতে আর কোনো স্থাপনা তৈরি না করতে সতর্ক করে আসেন। এরই মধ্যে ওই চক্রটি এক ব্যক্তির ইশারায় রাতে আবার নির্মাণকাজ শুরু করে।

এ বিষয়ে সহকারী কমিশনার (ভূমি) আরিফুর রহমান জানান, চেয়ারম্যান ইমদাদুল হক বিশ্বাসের লোক সুজা উদ্দিন আবার পাকা দালান তোলার চেষ্টা করছেন খবর পেয়ে গত ৭ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যার দিকে তিনি দ্বিতীয় দফায় ঘটনাস্থলে যান এবং কাজ বন্ধ করেন। এরপর চেয়ারম্যান সরকারি জমি দখলকারীদের পক্ষ নিয়ে ইউএনও ফাহমি মো. সায়েফকে মোবাইল ফোনে হুমকি-ধমকি দেন। আর তাঁকে লোকজন দিয়ে তাড়া দেওয়ার হুমকি দেন চেয়ারম্যান।

উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, ওই ঘটনার পর চেয়ারম্যান ইমদাদুল হক বিশ্বাসের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রের স্বার্থ রক্ষায় বাধা (উপজেলা পরিষদ আইন-১৯৮৪ এবং সংশোধনী ২০১১-এর ১৩ ধারা ‘খ’ উপ-ধারার অপরাধ) এবং হুমকি দেওয়ার (একই ধারা ‘গ’ উপধারার অপরাধ) অভিযোগ এনে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে তা স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে চেয়ারম্যান ইমদাদুল হক বিশ্বাস কালের কণ্ঠকে বলেন, স্থানীয় সরকার শাখার ঢাকা বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয় থেকে গত ২৮ মার্চ তাঁর বিরুদ্ধে আনা অভিযোগের লিখিত জবাব চাওয়া হয়েছে। বিষয়টির মীমাংসা হয়েছে বলে তিনি জবাবও দিয়েছেন।

রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম বলেন, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ইমদাদুল হক বিশ্বাসের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগটি স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। বর্তমানে স্থানীয় সরকার শাখার ঢাকা বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয় থেকে তদন্ত হচ্ছে।

এ বিষয়ে স্থানীয় সরকার শাখার ঢাকা বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ের পরিচালক ড. মো. আমিনুর রহমান কালের কণ্ঠকে বলেন, তিনি এরই মধ্যে রাজবাড়ী সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ইমদাদুল হক বিশ্বাসের জবাব চেয়ে নোটিশ করেছেন। লিখিত জবাব দেওয়ার জন্য ১৫ দিনের সময় দেওয়া হয়েছে।