kalerkantho

সোমবার । ১১ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৬ জুলাই ২০২১। ১৫ জিলহজ ১৪৪২

এবার যুবদল নেতা নৌকার ভোটকর্মী

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি   

৩১ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



এবার যুবদল নেতা নৌকার ভোটকর্মী

লক্ষ্মীপুর-২ (রায়পুর ও সদরের একাংশ) আসনের উপনির্বাচনে এবার নৌকা প্রতীকের নির্বাচন পরিচালনা কমিটিতে যুবদল নেতা আবুল হোসেনকে রাখা হয়েছে। তিনি পৌর নির্বাচনের আগের দিন রায়পুর থানা ঘেরাও এবং সড়ক অবরোধ করেছিলেন। জেলা যুবলীগের সভাপতি টিপু ও সাধারণ সম্পাদক নোমানের বিচার এবং সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবিতে তাঁরা ওই কর্মসূচি পালন করেন।

যুবদল নেতাকে নির্বাচনী কমিটিতে রাখায় স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। তাঁরা জানান, আবুল হোসেনকে গত রবিবার রাতে রায়পুর পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির ৪ নম্বর যুগ্ম আহ্বায়ক মনোনীত করা হয়। তিনি ওই ওয়ার্ডের নবনির্বাচিত কাউন্সিলর ও উপজেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক পদপ্রত্যাশী। কমিটিতে পৌর আওয়ামী লীগের সদস্য জাকির পাটওয়ারীকে আহ্বায়ক, ওয়ার্ড কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে যুগ্ম আহ্বায়ক করা হয়।

এদিকে এর আগে সদরের দালালবাজার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটিতে বিএনপি নেতা কামরুজ্জামান সোহেলকে যুগ্ম আহ্বায়ক করা হয়। সোহেল সদর উপজেলা পশ্চিম বিএনপির একাংশের আহ্বায়ক এবং ওই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান। ২৪ মার্চ নির্বাচন কমিটির বৈঠকে সোহেল আওয়ামী লীগের প্রার্থীর জন্য তিন লাখ টাকা ব্যয় করার ঘোষণা দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন উপস্থিত নেতাকর্মীরা। যদিও দলের মধ্যে তোপের মুখে পড়ে গত রবিবার তিনি সংবাদ সম্মেলন করে বিষয়টি অস্বীকার করে ‘বাস্তবতা’ তুলে ধরেন।

যুবদল নেতা আবুল হোসেন বলেন, ‘বিএনপি ভোটে যায়নি। আবার আমি কাউন্সিলর। এতে আমাকে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী কমিটির বৈঠকে ডাকা হয়েছে। কিন্তু আমি যেতে পারিনি। কমিটিতে আমাকে ৪ নম্বর যুগ্ম আহ্বায়ক করা হয়।’

উপনির্বাচন পরিচালনা করায় রায়পুর পৌরসভা কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক ও রায়পুরের নবনির্বাচিত মেয়র গিয়াস উদ্দিন রুবেল ভাট বলেন, ‘হোসেনকে কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করার কথা শুনেছি। এটা ঠিক হয়নি। দলের নির্দেশনা অনুযায়ী এখন আওয়ামী লীগে যোগদান করারও সুযোগ নেই।’

উল্লেখ্য, ১১ এপ্রিল ইভিএমের মাধ্যমে লক্ষ্মীপুর-২ আসনে নির্বাচন হবে। এতে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নুর উদ্দিন চৌধুরী নয়ন (নৌকা) ও কেন্দ্রীয় জাতীয় পার্টির সদস্য ফায়িজ উল্লাহ শিপন (লাঙল) প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।