kalerkantho

বুধবার । ১ বৈশাখ ১৪২৮। ১৪ এপ্রিল ২০২১। ১ রমজান ১৪৪২

শস্যে ফুটল বঙ্গবন্ধু

গিনেস রেকর্ডের প্রত্যাশা

শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি   

৭ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



শস্যে ফুটল বঙ্গবন্ধু

এক শ বিঘা জমির গাঢ় বেগুনি ও সবুজ ক্যানভাসে ফুটে উঠেছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি। বিশ্বের সর্ববৃহৎ এই প্রতিকৃতির নাম দেওয়া হয়েছে ‘শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু’। আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে এটি বিশ্বের সবচেয়ে বড় ‘শস্যচিত্র’ হিসেবে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে অন্তর্ভুক্তির প্রত্যাশা করা হচ্ছে।

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে জাতীয় পরিষদের উদ্যোগে এবং বেসরকারি কম্পানি ন্যাশনাল অ্যাগ্রিকেয়ারের সহযোগিতায় বগুড়ার শেরপুরে বঙ্গবন্ধুর এই শস্যচিত্র তৈরি করা হয়েছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, শেরপুর উপজেলার নিভৃত বালেন্দা গ্রামে বিস্তীর্ণ ফসলের মাঠে বঙ্গবন্ধুর বিশাল অবয়ব। মাঠে দুই ধরনের ধানের চারা রোপণের মাধ্যমে নিখুঁতভাবে আঁকা হয়েছে জাতির জনকের প্রতিকৃতি। এটি আরো সুন্দরভাবে ফুটিয়ে তুলতে বেশ কয়েকজন শ্রমিক নিরলস কাজ করছেন। কেউ আগাছা পরিষ্কারে ব্যস্ত, কেউবা ব্যস্ত সেচ দেওয়া নিয়ে। বিশ্বের সর্ববৃহৎ এই শস্যচিত্র দেখতে স্থানীয়দের সঙ্গে দেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলা থেকে মানুষ ভিড় জমাচ্ছে।

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক গত ২৯ জানুয়ারি প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে উচ্চ ফলনশীল দুই জাতের ধানের চারা রোপণের মাধ্যমে এই কর্মযজ্ঞের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করেন। সভাপতিত্ব করেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু জাতীয় পরিষদের প্রধান পৃষ্ঠপোষক কৃষিবিদ আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম।

‘শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু’ বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক কৃষিবিদ ফয়জুল সিদ্দিকী বলেন, “আগামী ১০ মার্চের পর থেকে সার্ভারের মাধ্যমে এই শস্যচিত্রের পরিধি নির্ধারণে মাপজোখ শুরু করা হবে। একই সঙ্গে সব দালিলিক কাগজপত্র ও ‘শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধুর’ ভিডিও গিনেস কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হবে। পরবর্তী সময়ে তাদের পক্ষ থেকে দুইজন সাক্ষী পরিদর্শনে আসবেন। সব কিছু দেখে তাঁরা প্রতিবেদন জমা দেবেন। এরপর বিশ্বের সর্ববৃহৎ শস্যচিত্র হিসেবে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে এটি অন্তর্ভুক্ত হবে বলে আমরা আশা করছি।’

জাতির জনকের জন্মশতবর্ষকে স্মরণীয় করে রাখতেই কৃষিবিদ ও প্রকৌশলীদের যৌথ পরিকল্পনায়  কৃষি ও কৃষকের বঙ্গবন্ধুর বিশ্বের সর্ববৃহৎ প্রতিকৃতি তৈরির এই কার্যক্রম বাস্তবায়িত হয় বলে মন্তব্য করেন ফয়জুল সিদ্দিকী।

বাস্তবায়নকারী কম্পানি ন্যাশনাল অ্যাগ্রিকেয়ারের ব্যবস্থাপক আসাদুজ্জামান বলেন, এই শস্যচিত্রের আয়তন হবে ১২ লাখ ৯২ হাজার বর্গফুট। এর দৈর্ঘ্য ৪০০ মিটার আর প্রস্থ ৩০০ মিটার। সে হিসাবে এটি হবে বিশ্বের সর্ববৃহৎ শস্যচিত্র। এর আগে সর্বশেষ ২০১৯ সালে চীনে তৈরি শস্যচিত্রটির আয়তন ছিল আট লাখ ৫৫ হাজার ৭৮৬ বর্গফুট।

শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধুর প্রতিচ্ছবি তৈরির জন্য দুই ধরনের ধান বেছে নেওয়া হয়—গাঢ় বেগুনি ও সোনালি রং। চীন থেকে এই ধানের জাতটি আমদানি করা হয়েছে। এরপর পরিকল্পনা অনুযায়ী এই নিভৃত পল্লীর বালেন্দা গ্রামের ফসলি মাঠে ১০০ বিঘা জমি লিজ নেওয়া হয়। পরে ন্যাশনাল ক্যাডেট কোরের সদস্যদের নিয়ে লে-আউট তৈরি করা হয়। এই কাজে ১০০ বিএনসিসি সদস্য অংশ নেন। আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের পর পুরোদমে চলে চারা রোপণের কাজ। বেশ কয়েকজন শ্রমিক শস্যচিত্রে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি নিখুঁত ও ত্রুটিহীনভাবে ফুটিয়ে তুলতে সেচ ও পরিচর্যায় কাজ করছেন। এরই মধ্যে ১০০ বিঘা জমিতে রোপণকৃত ধানের চারায় ফুটে উঠেছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর প্রতিচ্ছবি।

মন্তব্য