kalerkantho

সোমবার । ৬ বৈশাখ ১৪২৮। ১৯ এপ্রিল ২০২১। ৬ রমজান ১৪৪২

রেলের ‘স্ট্যান্ডিং’ ফাঁকি

বিভিন্ন প্রয়োজনে নীলফামারী স্টেশন থেকে পাশের চিলাহাটি, ডোমার, সৈয়দপুর, পার্বতীপুর, ফুলবাড়ীসহ আশপাশের এলাকায় ট্রেনে চলাচল করতে হয়।

নীলফামারী প্রতিনিধি   

২ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রেলের ‘স্ট্যান্ডিং’ ফাঁকি

নীলফামারী রেলস্টেশন থেকে কাছাকাছি গন্তব্যে ‘স্ট্যান্ডিং’ টিকিট নেই। তবে যাত্রীরা ঠিকই আশপাশে যাতায়াত করে। এদের কাছ থেকে বিনা রসিদে ভাড়াও নেওয়া হয়।

যাত্রীরা জানায়, বিভিন্ন প্রয়োজনে নীলফামারী স্টেশন থেকে পাশের চিলাহাটি, ডোমার, সৈয়দপুর, পার্বতীপুর, ফুলবাড়ীসহ আশপাশের এলাকার বিভিন্ন স্থানে ট্রেনে চলাচল করতে হয়। এসব স্থানে যাতায়াতের টিকিট দেওয়া হচ্ছে না স্টেশনে। বাধ্য হয়ে টিকিট ছাড়াই ট্রেনে উঠতে হয়।

ডোমার উপজেলার কাওলা গ্রামের জাহিদুল ইসলাম (৪৫) বলেন, ‘যাওয়ার সময় চিলাহাটি স্টেশনে টিকিট পাওয়া গেলেও নীলফামারী থেকে ফেরার টিকিট পাওয়া যায় না। ফলে ট্রেনে উঠে ভাড়া পরিশোধ করলেও রসিদ পাওয়া যায় না। আর রসিদের কথা বললেই জরিমানার হিসাব চলে আসে।’

গোমনাতি গ্রামের অজিফা বেগম (৪৫) বলেন, ‘আমি গত শুক্রবার তিতুমীর এক্সপ্রেস ট্রেনে নীলফামারী থেকে চিলাহাটি আসি। এ সময় স্টেশনে টিকিট না পেয়ে ট্রেনে উঠলে চারজনের ১০০ টাকা ভাড়া নেন টিটিই; কিন্তু কোনো রসিদ দেননি।’

পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ উপজেলার সোনাহার গ্রামের ওয়াজেদ আলী (৫৫) ও নূর ইসলাম (৫০) জানান, তাঁরা দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে যাবেন; কিন্তু টিকিট পাচ্ছেন না।

এ বিষয়ে নীলফামারী রেলস্টেশনের বুকিং সহকারী মো. শামীম হোসেন বলেন, ‘করোনার কারণে এক মাসের বেশি সময় ধরে নীলফামারী থেকে সৈয়দপুর, পার্বতীপুর, ফুলবাড়ী, বিরামপুর পর্যন্ত আন্তনগর ট্রেন তিতুমীর ও রূপসার টিকিট দেওয়া হয় না। এসব ট্রেনের আসন বরাদ্দ না থাকায় ওই টিকিট দেওয়া বন্ধ আছে। তবে বরেন্দ্র ও নীলসাগর ট্রেনের টিকিট দেওয়া হয়।’

নীলফামারীর স্টেশন মাস্টার মো. ওবায়দুল ইসলাম বলেন, ‘করোনার শুরু থেকে বেশ কিছুদিন স্ট্যান্ডিং টিকিট বন্ধ ছিল। এরপর চালু হলেও গত ২০ জানুয়ারি থেকে আবারও তা বন্ধ করে দেওয়া হয়। নির্দেশনা না থাকায় আসন বরাদ্দের বাইরে কোনো টিকিট বিক্রি করতে পারছি না।’ তিনি জানান, বিনা টিকিটের যাত্রীরা ট্রেনে উঠে টিকিট নিতে চাইলে জরিমানা দিতে হয়। ওই জরিমানার পরিমাণ গন্তব্যের ভাড়ার সমপরিমাণ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা