kalerkantho

বুধবার । ১৩ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৮ জুলাই ২০২১। ১৭ জিলহজ ১৪৪২

মায়ের কোলে ঠাঁই হলো না শিশুটির

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, রংপুর   

১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মায়ের কোলে ঠাঁই হলো না শিশুটির

মেয়ে—এই ‘অপরাধে’ জন্মের পর থেকেই এহাত-ওহাত ঘুরছে শিশুটি। কোনো আইনি প্রক্রিয়া ছাড়াই শিশুটিকে গত শুক্রবার রংপুরের বদরগঞ্জ পৌর শহরের শাহপুর এলাকার নিঃসন্তান দম্পতি নিতাই চন্দ্র ও সুচিত্রা রানীর কাছে তুলে দিয়েছে পরিবার।

প্রসঙ্গত, দিনাজপুরের পার্বতীপুরের রঘুনাথপুর বানিয়াপাড়ার প্রদীপ বিশ্বাস ও পল্লবী দম্পতির দুটি মেয়ে আছে। এর মধ্যে গত বুধবার রাতে বদরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আরেকটি মেয়ের জন্ম দেন পল্লবী। তাঁদের আশা ছিল, এবারের সন্তানটি ছেলে হবে। তা না হওয়ায় ছাড়পত্র না নিয়েই সদ্যোজাত মেয়েকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ফেলে চলে যান মা-বাবা। তখন পরিচ্ছন্নতাকর্মী জোবেদা বেগম শিশুটিকে নিজের বাড়িতে নিয়ে যান। এ নিয়ে কালের কণ্ঠসহ বিভিন্ন পত্রিকায় প্রতিবেদন প্রকাশিত হলে তোলপাড় শুরু হয়। আইনি জটিলতায় পড়ার আশঙ্কায় পরদিন বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসেন শিশুটির বাবা। এ সময় মেয়েকে নিয়ে বাড়ি ফেরার আগ্রহের কথা জানান তিনি। এ অবস্থায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ শিশুটিকে ‘উদ্ধার’ করে তাঁর বাবার হাতে তুলে দেয়, কিন্তু পরদিন শুক্রবার রাতে নিতাই ও সুচিত্রার কাছে মেয়েকে তুলে দেন প্রদীপ।

মানবাধিকারকর্মী শিল্পী শিকদার বলেন, ‘শিশুটিকে অন্যের হাতে তুলে দিয়ে মা-বাবা ঠিক করেননি। প্রয়োজনে প্রশাসনের সহযোগিতা চাইতে পারত। এতে রাষ্ট্রের অনেক দায়িত্ব আছে।’