kalerkantho

শুক্রবার । ১৩ ফাল্গুন ১৪২৭। ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১। ১৩ রজব ১৪৪২

৭৮৪ বয়স্ক ভাতা বাতিল

ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি   

২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জাতীয় পরিচয়পত্র জালিয়াতি করে জন্ম তারিখ পরিবর্তনের অভিযোগে বগুড়ার ধুনট উপজেলায় ৭৮৪ জনের বয়স্ক ভাতা বাতিল করা হয়েছে। এমআইএস (ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম) কার্যক্রমে বয়সের অসংগতি ধরা পড়ায় তাঁদের ভাতা বাতিল করা হয়। দীর্ঘদিন ধরে তাঁরা বয়স্ক ভাতা পেলেও এখন বাদ পড়ার খবরে হতাশ হয়ে পড়েছেন।

উপজেলা সমাজসেবা অফিস সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ১০টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় মোট বয়স্ক ভাতাভোগীর সংখ্যা ১০ হাজার ২৯৮ জন। চলতি বছর সমাজসেবা অধিদপ্তরের নির্দেশে এমআইএস কার্যক্রম পরিচালনা শুরু করেছে উপজেলা সমাজসেবা অফিস। এ কাজে সহযোগিতা করছেন স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের উদ্যোক্তা ও সমাজকর্মীরা।

ইউনিয়ন পরিষদে কর্মরত উদ্যোক্তারা জানান, ডিজিটাল নিয়মে ডাটাবেইস করতে গিয়ে মূল জাতীয় পরিচয়পত্রের (এনআইডি) সঙ্গে অনেক ভাতাভোগীর জন্ম তারিখ  মেলেনি। এর মধ্যে পৌরসভায় ২৬ জন, উপজেলার গোপালনগর ইউনিয়নে ১২০ জন, ধুনট সদরে ৭০ জন, চৌকিবাড়ীতে ৬১ জন, এলাঙ্গীতে ৬৫ জন, নিমগাছিতে ৬২ জন, গোসাইবাড়ীতে ১০১ জন, চিকাশিতে ৬২ জন, ভাণ্ডারবাড়ীতে ৭৪ জন, কালেরপাড়াতে ৪৩ জন ও মথুরাপুর ৯২ জনের জন্ম তারিখে অসংগতি পাওয়া গেছে। ফলে তাঁদের বয়স্ক ভাতা বাতিল করা হয়েছে।

বাতিলকৃত ভাতাভোগীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বয়স্ক ভাতার জন্য তাঁরা জনপ্রতিনিধিদের কাছে পাঁচ-ছয় হাজার টাকা ও জাতীয় পরিচয়পত্র জমা দিয়েছিলেন। জনপ্রতিনিধিরা অর্থের লোভে এনআইডি জালিয়াতির মাধ্যমে জন্ম তারিখ পরিবর্তন করে বয়স্ক ভাতা করে দিয়েছেন। কিন্তু এখন সেই কার্ডগুলো বাতিল করা হয়েছে।

ধুনট উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল কাফী এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, এখন অনলাইনে ভাতার তথ্য পূরণ করতে হয়। এ ক্ষেত্রে নির্ধারিত বয়সের কম উল্লেখ করলে অনলাইন সেটা গ্রহণ করবে না। বয়োজ্যেষ্ঠ না হয়েও বয়স্ক ভাতাভোগী ৭৮৪ জনের ভাতা কার্যক্রম বাতিল করা হয়েছে। তাঁদের জায়গায় নীতিমালা অনুযায়ী অন্যদের প্রতিস্থাপন করা হবে। এমআইএস পদ্ধতির কারণে এ ধরনের কাজ আর হওয়ার কোনো সুযোগ নেই।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা