kalerkantho

শুক্রবার । ১৩ ফাল্গুন ১৪২৭। ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১। ১৩ রজব ১৪৪২

একপেশে প্রচার

সরব নৌকার প্রার্থী, ধানের শীষের প্রার্থী নীরব

লিমন বাসার, বগুড়া   

২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



একপেশে প্রচার

পোস্টার, মাইকিং, গণসংযোগ, ফেসবুক, পথসভা, উঠান বৈঠকসহ সব ক্ষেত্রে নৌকার প্রচার চোখে পড়ার মতো।

এর তুলনায় ধানের শীষের প্রকাশ্য প্রচার তো দূরের কথা, গণসংযোগেরও দেখা মেলেনি। সব মিলিয়ে বগুড়ার শিবগঞ্জ পৌর নির্বাচনে প্রচার-প্রচারণায় কার্যত একপেশে ভাব লক্ষ করা যাচ্ছে। আগামী শনিবার এখানে ভোট।

ধানের শীষ নীরব

সম্প্রতি সরেজমিন বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী মতিয়ার রহমান মতিনের পক্ষে প্রকাশ্যে কোনো প্রচার দেখা যায়নি। নির্বাচনী অফিস, আশানুরূপ পোস্টার কোনোটাই চোখে পড়েনি।

স্থানীয়রা জানান, নীরবে চলছে ধানের শীষের প্রচার। তবে মতিন সমর্থকদের সঙ্গে নিয়ে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট চাইছেন। উপজেলা পর্যায়ের হাতেগোনা কয়েকজন নেতা ছাড়া বিপুলসংখ্যক এখন পর্যন্ত দেখা যায়নি। বিএনপির কর্মীরা নীরবে প্রচার কাজ করছেন বলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন নেতা জানান।

চায়ের দোকান, আড্ডা, আলোচনায় একটাই প্রশ্ন, বিএনপির প্রচুর ভোট ও জনসমর্থন থাকা সত্ত্ব্বেও প্রার্থীর প্রচার এবং নেতাকর্মীরা মাঠে নেই কেন?

সচেতনমহল মনে করছে, দলীয় কোন্দলের কারণে তাঁরা সাময়িক এক হয়ে মাঠে নামলেও মনেপ্রাণে ভোট করছেন না কেউ। ফলে তাঁদের ভোটের মাঠ গরম হচ্ছে না।

মিরেরচক মহল্লার দুদু মিয়া নামের এক ভোটার বলেন, ‘১৯৭২ সালের পর শিবগঞ্জে নৌকার গণজাগরণ চোখে পড়েনি। কিন্তু এবার সেই নৌকার জোয়ার এসেছে। নারী ভোটাররা স্বপ্রণোদিত হয়ে নৌকার মিছিল করছেন। নৌকার এবার জয় হবেই।’

পৌরসভার তেঘরির ভোটার নুর মোহাম্মদ বলেন, ‘বিএনপির স্থানীয় প্রথম শ্রেণির নেতারা মাঠে নেই। প্রার্থীর প্রচারণাও কম। এমন অবস্থায় কোনো কর্মী প্রকাশ্যে প্রচার কাজে অংশ নিয়ে বিপাকে পড়তে চাচ্ছেন না।’

তবে ধানের শীষের মেয়র পদপ্রার্থী মতিয়ার রহমান মতিন বলেন, ‘আমাকে ঠিকমতো প্রচার-প্রচারণা চালাতে দিচ্ছেন না সরকারি দলের প্রার্থী। এদিকে তিনবার হামলা চালানো হয়েছে আমার ওপর। আমার পোস্টার ছিঁড়ে ফেলা হচ্ছে। প্রচারণায় বাধা দেওয়া হচ্ছে। তবে সুষ্ঠু ভোট হলে ধানের শীষেরই বিজয় হবে।’

সরব নৌকা

বর্তমান মেয়র ও নৌকা প্রতীকের প্রার্থী তৌহিদুর রহমান মানিক তাঁর উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষার জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ প্রচারণায় ভোট চাচ্ছেন। দিন-রাত গণসংযোগ, উঠান বৈঠক আর সভা-সমাবেশের মাধ্যমে ব্যস্ত সময় পার করছেন। নৌকা প্রতীকের কর্মী-সমর্থকদের নির্বাচনী প্রচারণায় সরগরম হয়ে উঠেছে বিভিন্ন এলাকা।

স্থানীয় আওয়ামী লীগ থেকে শুরু করে জেলা এবং ইউনিয়নের নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে ভোট চাইছেন। তাঁদের সঙ্গে পৌর শহরের উন্নয়নে এক জোট হয়েছেন শিক্ষক, ব্যবসায়ীসহ সর্বস্তরের মানুষ। তাঁরা তুলে ধরছেন শিবগঞ্জ পৌরসভাসহ উপজেলায় গত পাঁচ বছরের উন্নয়নের চিত্র। নারী নেত্রীরাও তাঁদের কর্মীদের নিয়ে ছুটছেন ভোটারদের কাছে।

নৌকা প্রতীকের মেয়র পদপ্রার্থী তৌহিদুর রহমান মানিক বলেন, ‘ধানের শীষের প্রার্থী শুধুই নালিশ করে যাচ্ছেন। তাঁদের মাঠে কোনো লোক নেই, প্রচারণাতেও নেই। তিনি থাকেন বগুড়া শহরে। সকালে এসে দুই তিন জায়গায় ভোট চেয়ে সন্ধ্যায় চলে যাচ্ছেন। কোনো জনসমর্থন নেই। আর এ কারণে ভোটাররাও তাঁদের সঙ্গে নেই।’

তিনি আরো বলেন, ‘গত পাঁচ বছরে নাগরিক সেবাসহ যে উন্নয়নমূলক কাজ হয়েছে এবং পৌরবাসীর সেবা করে যে ভালোবাসা অর্জন করতে পেরেছি তাতে দ্বিতীয়বারের মতো পৌরবাসী আমাকে মেয়র হিসেবে নির্বাচিত করবেন।’

শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আনিসুর রহমান বলেন, ‘নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এ পর্যন্ত কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ ভোটের জন্য সার্বিক কার্যক্রম চলমান।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা