kalerkantho

শুক্রবার । ১৩ ফাল্গুন ১৪২৭। ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১। ১৩ রজব ১৪৪২

কাহালু পৌরসভা নির্বাচন

হাতে ১০ লাখ টাকা তবু ধারে ভোট

নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি   

২৫ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



তৃতীয় ধাপে ৩০ জানুয়ারি বগুড়ার কাহালু পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এই নির্বাচনে মেয়র পদে দুই প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তাঁরা হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত বর্তমান মেয়র হেলাল উদ্দিন কবিরাজ ও বিএনপি মনোনীত আব্দুল মান্নান।

আব্দুল মান্নানের চেয়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হেলাল উদ্দিন কবিরাজ শিক্ষা ও অর্থে এগিয়ে রয়েছেন। তবে শিক্ষাগত যোগ্যতায় তাঁরা দুজনই মাধ্যমিকের গণ্ডি পেরোতে পারেননি। নগদ টাকায় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর ধারেকাছে নেই বিএনপির প্রার্থী। তবে আয় বেশি বিএনপির প্রার্থীর। তাঁদের মিল আছে দুই বিষয়ে। তা হলো তাঁরা দুজন ঋণগ্রস্ত ও পেশায় ব্যবসায়ী। উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসারের কাছে জমা দেওয়া হলফনামা বিশ্লেষণ করে এসব তথ্য জানা গেছে।

আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী হেলাল উদ্দিন কবিরাজ নবম শ্রেণি পাস। পেশায় ব্যবসায়ী। তাঁর নামে পাঁচটি মামলা ছিল, যা নিষ্পত্তি হয়েছে। বার্ষিক আয় দুই লাখ ৯৮ হাজার টাকা। তাঁর হাতে নগদ আছে ১০ লাখ, স্ত্রীর নামে এক লাখ, ব্যাংকে আছে দুই লাখ এক হাজার টাকা, সোনা আছে ২৫ ভরি এবং অন্যান্য ব্যবসায় পুঁজি আছে ২৬ লাখ পাঁচ হাজার ৪৪৪ টাকা। নিজের নামে ৪৩ শতাংশ, স্ত্রীর নামে ২৯ শতাংশ কৃষিজমি ও সাড়ে ৮ শতাংশ অকৃষি জমি এবং বাড়ি রয়েছে একটি। রূপালী ব্যাংক থেকে তাঁর নামে ১০ লাখ টাকা সিসি ঋণ রয়েছে।

নির্বাচনে তিনি দুই লাখ টাকা ব্যয় করবেন। এর মধ্যে নিজের আয় থেকে এক লাখ টাকা এবং ভাই সুলতান আলী কবিরাজের কাছ থেকে এক লাখ টাকা ধার নেবেন।

বিএনপির প্রার্থী আব্দুল মান্নানের শিক্ষাগত যোগ্যতা স্বশিক্ষিত। পেশায় ব্যবসায়ী। তাঁর বার্ষিক আয় চার লাখ টাকা। তাঁর নামে দুটি মামলা ছিল। এর মধ্যে একটিতে খালাস, অন্যটিতে অব্যাহতি পেয়েছেন। তাঁর হাতে নগদ টাকা আছে এক লাখ, স্বর্ণালংকার আছে ৩০ হাজার টাকার। অন্যান্য ব্যবসায় পুঁজি আছে ১৭ লাখ ৬০ হাজার টাকা। তাঁর নামে সাত বিঘা কৃষিজমি, ৮০ শতাংশ অকৃষি জমি এবং একটি বাড়ি রয়েছে। স্ত্রীর নামে ৭০ শতাংশ কৃষি ও ৭০ শতাংশ অকৃষি জমি রয়েছে। তাঁর নামে ৪০ লাখ এবং স্ত্রী কুলছুম বেগমের নামে আরো ৪০ লাখ টাকার ব্যাংকঋণ রয়েছে। নির্বাচনে তিনি আয় থেকে দুই লাখ টাকা ব্যয় করবেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা