kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১২ ফাল্গুন ১৪২৭। ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১। ১২ রজব ১৪৪২

পৌর নির্বাচন

বিদ্রোহী-শূলে আওয়ামী লীগ

সিলেট অফিস   

২০ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সিলেটে দুটি পৌরসভা নির্বাচনে নিজ দলের বিদ্রোহীরাই আওয়ামী লীগের মেয়র পদপ্রার্থীদের বড় প্রতিপক্ষ হয়ে দাঁড়িয়েছেন। তৃতীয় ধাপে আগামী ৩০ জানুয়ারি সিলেটের গোলাপগঞ্জ ও জকিগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনকে সামনে রেখে দুই পৌরসভায় নৌকার প্রার্থীদের বাইরেও বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন দলটির আরো চার নেতা। অন্যদিকে জকিগঞ্জ পৌরসভায় একজন বিদ্রোহী প্রার্থী থাকলেও গোলাপগঞ্জ পৌরসভায় একক প্রার্থী দিতে সক্ষম হয়েছে বিএনপি।

গোলাপগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে এবার চারজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এর মধ্যে তিনজনই সরকারদলীয় নেতা। আলোচনায় না থাকলেও অনেকটা চমক দেখিয়ে নৌকা প্রতীকে দলের মনোনয়ন পেয়েছেন গোলাপগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রুহেল আহমদ। তাঁর বিপরীতে দলের বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন বর্তমান পৌর মেয়র ও গোলাপগঞ্জ পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আমিনুল ইসলাম রাবেল (জগ প্রতীক) এবং সাবেক পৌর মেয়র ও আওয়ামী লীগ নেতা জাকারিয়া আহমদ পাপলু (মোবাইল ফোন প্রতীক)। বিপরীতে ধানের শীষের একক প্রার্থী হয়েছেন বিএনপি নেতা গোলাম কিবরিয়া চৌধুরী।

অন্যদিকে জকিগঞ্জ পৌরসভায় মেয়র পদপ্রার্থী হয়েছেন আটজন। এর মধ্যে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রতীক নৌকা নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বর্তমান মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা খলিল উদ্দিন। তাঁর বিপরীতে জগ প্রতীক নিয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ফারুক আহমদ। অন্যদিকে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন আব্দুল আহাদ। তিনি নারিকেলগাছ প্রতীক নিয়ে নির্বাচনের মাঠে নেমেছেন। যদিও এ পৌরসভায় বিএনপি একক প্রার্থী দিতে পারেনি। মেয়র পদে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন বিএনপি নেতা সাবেক পৌর মেয়র ইকবাল আহমদ। তাঁর বিপরীতে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন বিএনপি নেতা আব্দুল্লাহ আল মামুন হীরা। তিনি চামচ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন। তাঁদের পাশাপাশি মেয়র হতে নির্বাচনের মাঠে আছেন জাতীয় পার্টির লাঙল প্রতীকের প্রার্থী আব্দুল মালেক ফারুক, দুই স্বতন্ত্র মেয়র পদপ্রার্থী হ্যাঙ্গার প্রতীকের জাফরুল ইসলাম ও মোবাইল ফোন প্রতীকের হিফজুর রহমান।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা