kalerkantho

রবিবার। ৩ মাঘ ১৪২৭। ১৭ জানুয়ারি ২০২১। ৩ জমাদিউস সানি ১৪৪২

বীর মুক্তিযোদ্ধার হাত-পা ভাঙল চাঁদাবাজরা

কলাপাড়ায় চেয়ারম্যানসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি   

১ ডিসেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় দাবি করা ১০ লাখ টাকা চাঁদা না দেওয়ার অপরাধে বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহ আলম হাওলাদারকে (৬৫) পিটিয়ে ও কুপিয়ে হাত-পা ভেঙে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা।

গত রবিবার সন্ধ্যায় উপজেলার টিয়াখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ মশিউর রহমান ওরফে শিমু মিরার নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী চাকামইয়া ইউনিয়নের ইসলামপুর গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহ আলম হাওলাদারের মালিকানাধীন বিসমিল্লাহ ইটভাটায় হামলা চালিয়ে এ ঘটনা ঘটায়।

এ সময় সন্ত্রাসীরা লাঠি দিয়ে মারধরের পাশাপাশি কাঠের খাটিয়া ও রামদা দিয়ে ওই বীর মুক্তিযোদ্ধাকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। আহত বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহ আলম হাওলাদারকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায় স্থানীয়রা।

পরে পটুয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে তাঁকে ভর্তি করা হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

এ ঘটনায় রবিবার রাতেই ১১ জনের নামসহ অজ্ঞাতপরিচয় আরো ২০-২৫ জনকে আসামি করে থানায় মামলা করেন মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী আকলিমা বেগম। মামলার পর রাতেই চাকামইয়া ইউনিয়নের শান্তিপুর গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে চেয়ারম্যান মশিউর রহমান শিমু ও তাঁর স্ত্রী খাদিজা আক্তার এলিজাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

এ ছাড়া ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে নেছার হাওলাদার, ইমরান গাজী ও নাইম নামের আরো তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। এদিকে গ্রেপ্তার চেয়ারম্যানের নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে গতকাল বিক্ষোভ মিছিল করে টিয়াখালীবাসী।

কলাপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান জানান, গ্রেপ্তারদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় অন্য আসামিদেরও গ্রেপ্তারের অভিযান চলছে।

মন্তব্য