kalerkantho

শুক্রবার । ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৭ নভেম্বর ২০২০। ১১ রবিউস সানি ১৪৪২

কলেজছাত্রীর কঙ্কাল উদ্ধার

চুয়াডাঙ্গা ও দামুড়হুদা প্রতিনিধি   

২৩ নভেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কলেজছাত্রীর কঙ্কাল উদ্ধার

মিম খাতুন

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদায় তিন মাস আগে নিখোঁজ হওয়া কলেজছাত্রী মিম খাতুনের (১৯) কঙ্কাল উদ্ধার হয়েছে। গত শনিবার সন্ধ্যায় উপজেলার উজিরপুর গ্রামে মাথাভাঙ্গা নদীর তীর থেকে এই কঙ্কাল উদ্ধার করে পুলিশ।

থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, উজিরপুর গ্রামে অবস্থিত একটি মাদরাসার কয়েকজন শিক্ষার্থী মাথাভাঙ্গা নদীর তীরে মানুষের মাথার খুলি ও হাড়গোড় দেখতে পায়। পরে তারা স্থানীয়দের জানালে থানায় খবর দেয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে সেগুলো উদ্ধার করে পুলিশ। এই সময় কঙ্কালের পাশে এক জোড়া জুতা, জামা-কাপড়, ভ্যানিটি ব্যাগ ও ব্যাগের ভেতরে সার্টিফিকেট পাওয়া যায়। পরে পুলিশের পক্ষ থেকে সার্টিফিকেটে উল্লিখিত ঠিকানায় যোগাযোগ করে সার্টিফিকেটধারী মেয়েটি নিখোঁজ বলে নিশ্চিত হয়। এরপর মেয়েটির স্বজনদের কাছে জামা-কাপড়, জুতা ও ভ্যানিটি ব্যাগের ছবি পাঠানো হয়। ওই ছবি দেখে পরিবারের লোকজন ওই কঙ্কাল মিমের বলে নিশ্চিত করে। কঙ্কালটি কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার পিপুলবাড়িয়া গ্রামের মধু খানের মেয়ে মিম খাতুনের। তিনি কুষ্টিয়ার আমলা সরকারি কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী ছিলেন। তিন মাস আগে নানাবাড়ি মিরপুর উপজেলার সুলতানপুর গ্রামে যাওয়ার উদ্দেশে বাড়ি থেকে বের হন। পথে তিনি নিখোঁজ হন। এদিকে নিহতের পরিচয় নিশ্চিত হওয়ার পর মিমের স্বজনরা গতকাল রবিবার দুপুরে চুয়াডাঙ্গায় আসেন। এর আগে শনিবার রাতেই উদ্ধার করা কঙ্কাল থানা থেকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।

স্বজনদের উদ্ধৃতি দিয়ে দামুড়হুদা মডেল থানার ওসি আব্দুল খালেক বলেন, মিম নিখোঁজ হওয়ার পর তাঁর পরিবার থানায় কোনো জিডি কিংবা কোনো মামলা করেনি। সদর হাসপাতাল মর্গের কাজ শেষে পরিবারের লোকজন মিমের কঙ্কাল নিয়ে যেতে পারবেন বলেও জানান তিনি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা