kalerkantho

শনিবার । ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৮ নভেম্বর ২০২০। ১২ রবিউস সানি ১৪৪২

স্বামীকে ‘মৃত’ দেখিয়ে ভাতা উত্তোলন

ঝিকরগাছা (যশোর) প্রতিনিধি   

২৯ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যশোরের ঝিকরগাছার সদর ইউনিয়নের লক্ষ্মীপুর গ্রামের মাঠপাড়ার বাসিন্দা কোহিনূর বেগম। স্বামী বাদশা হোসেন ঢাকায় নরসুন্দরের কাজ করেন। গত সপ্তাহ বাড়িতে ছিলেন। তার পরও স্বামীকে মৃত বানিয়ে কোহিনূর বেগমকে বিধবা ভাতার কার্ড দেওয়া হয়েছে। স্থানীয় নারী ইউপি সদস্য এ কাজটি করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

তথ্য মতে, ঝিকরগাছা সদর ইউনিয়নে ২০১৯-২০২০ অর্থবছরে ৫৫ জনকে অতিরিক্ত বিধবা ভাতাভোগীর তালিকায় স্থান দেওয়া হয়। এতে কোহিনূর বেগমকে তালিকাভুক্ত করা হয়েছে। একই তালিকায় মল্লিকপুর গ্রামের আনোয়ারা খাতুনের স্বামী আবু তালেবকেও মৃত দেখিয়ে বিধবা কার্ড দেওয়া হয়েছে। এরই মধ্যে তাঁরা একবার ভাতার টাকাও পেয়েছেন।

কিন্তু সরেজমিন কোহিনূর বেগমকে বাড়ি পাওয়া যায়নি। তবে তাঁর ভাবি সালেহা খাতুন জানান, দুলাভাই ঢাকা থেকে এসেছে। বোন-দুলাভাই আত্মীয়ের বাড়ি গেছেন।

আনোয়ারা বেগমের বাড়িতে গিয়ে দেখা গেছে, অসুস্থতার কারণে অর্ধযুগ ধরে বিছানায় তিনি।

সদর ইউনিয়নের সংরক্ষিত ওয়ার্ডের নারী সদস্য হীরা খাতুন বলেন, ‘তার স্বামী ঢাকায় থাকে। তা ছাড়া ওই নারীর মায়ের নামে বিধবা ভাতার কার্ড ছিল। মা মরে যাওয়ায় সেটি তার নামে করে দিয়েছি।’ ইউএনও আরাফাত রহমান বলেন, ‘কোনো অবস্থাতেই সধবাকে বিধবা ভাতার কার্ড দেওয়া যাবে না। কেউ দিলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা