kalerkantho

মঙ্গলবার। ৫ মাঘ ১৪২৭। ১৯ জানুয়ারি ২০২১। ৫ জমাদিউস সানি ১৪৪২

ভাতায় ভাগ বসান মফিজ মেম্বার

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি   

২৮ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ঝাউডাঙ্গা ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য (মেম্বার) মফিজুল ইসলাম সরকারি ভাতার টাকায় ভাগ বসান বলে জানা গেছে। একই সঙ্গে ১০ টাকা কেজি দরের চাল গরিবের মধ্যে বিতরণ না করে আত্মীয়-স্বজনকে দিচ্ছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

সরেজমিনে ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডে গেলে ৭৫ বছর বয়সী বাবর আলী সরদার জানান, তাঁর প্রতিবন্ধী ভাতার ৯ হাজার টাকার মধ্যে মেম্বার মফিজ দিয়েছেন মাত্র সাড়ে চার হাজার টাকা। বাকি টাকা তিনি কেটে নিয়েছেন। ইউনিয়নের যোগরাজপুর গ্রামের মৃত আব্দুস সাত্তারের স্ত্রী খোদেজা বেগম এবং আসাদুর রহমানের স্ত্রী ফিরোজা বেগম জানান, তাঁদের ছয় হাজার টাকার বিধবা ভাতার অর্ধেকই কেটে নিয়েছেন মেম্বার। এ ছাড়া কারসাজি করে এলাকার বিত্তশালী মৃত লোকমান হাজরার স্ত্রী জোহরা বেগমকে প্রতিবন্ধী কার্ড করে দিয়েছেন তিনি। স্থানীয়ভাবে বিত্তশালী আফসার আলীর ছেলে ইনসাফ আলীকে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ১০ টাকা কেজি দরের চালের কার্ড করে দিয়েছেন। তিনি চাল উত্তোলন করে তা গরুকে খাওয়াচ্ছেন। মৃত শহর আলীর ছেলে মোসলেম আলী, মৃত আহম্মেদ আলীর ছেলে আব্দুল গফুর প্রকৃত প্রতিবন্ধী না হয়েও মফিজ মেম্বারের মাধ্যমে প্রতিবন্ধী কার্ড জুটিয়ে নিয়েছেন।

যোগরাজপুর ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম রাশিদুল ইসলাম এবং স্থানীয় ব্যবসায়ী লুত্ফর রহমান জানান, মেম্বার মফিজুলের দুর্নীতির শেষ নেই। ইউপি সদস্য মফিজুল ইসলাম বলেন, সামনে নির্বাচন, এ কারণে তাঁর বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করছে প্রতিপক্ষের লোকজন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা