kalerkantho

সোমবার । ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ৩০ নভেম্বর ২০২০। ১৪ রবিউস সানি ১৪৪২

এ কেমন নিষ্ঠুরতা

ঝিকরগাছা (যশোর) প্রতিনিধি   

২১ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



এ কেমন নিষ্ঠুরতা

যশোরের ঝিকরগাছায় নারীর চুল কেটে দিয়েছেন সাবেক স্বামী। ছবি : কালের কণ্ঠ

যশোরের ঝিকরগাছায় সাবেক স্বামীর বিরুদ্ধে তরুণীকে মারধর করে মাথার চুল কেটে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। গত রবিবার মাগুরা গ্রামের পশ্চিম পাড়ার শিমুলতলায় এ ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী হালিমা খাতুন (২০) গত সোমবার সাবেক স্বামীসহ তিনজনের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। তবে পুলিশের দাবি, ঘটনাটি রহস্যজনক।

হালিমার অভিযোগ, গত বছরের জুন মাসে পাশের মনোহরপুর গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে মিলন হোসেনের সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয়। এ বছরের জানুয়ারি মাস থেকে তিনি বাবার বাসায় থাকছেন। ফেব্রুয়ারি মাসে পোস্ট অফিসের মাধ্যমে মিলন তাঁকে তালাকের নোটিশ পাঠান। এ নিয়ে দুই পরিবারের পক্ষ থেকে আদালত ও থানায় তিনটি মামলা করা হয়।

এর মধ্যে রবিবার রাতে তিনি টয়লেটে যাওয়ার জন্য ঘর থেকে বের হলে মিলন ও তাঁর ফুফাতো ভাই মফিজুর রহমান মিলে তাঁর (হালিমা) মুখ বেঁধে ফেলেন। পরে তাঁকে জোর করে বাসার ছাদে নিয়ে মারধর করে মাথার চুল কেটে দেন। এ সময় তাঁর চিত্কার শুনে মা-বাবা বিষয়টি টের পেলে মিলন ও মফিজুর পালিয়ে যান।

হালিমার বাবা মোসলেম আলী মাস্টার অভিযোগ করেন, ‘মিলন ও তার সঙ্গীরা আমার মেয়েকে মেরে ফেলার উদ্দেশ্যে গাছ বেয়ে ছাদে উঠে সিঁড়িঘরে ওত পেতে ছিল।’ অন্যদিকে ঘটনাটি সাজানো দাবি করে অভিযুক্ত মিলনের মা মাফুজা খাতুন বলেন, ঘটনার দিন তাঁর ছেলে বাড়িতে ছিলেন না। তিনি পাঁচ-ছয় মাস ধরে যশোরে থাকছেন।

ঝিকরগাছা থানার ওসি আব্দুর রাজ্জাক জানান, অভিযোগের ভিত্তিতে উভয় পক্ষকে ডাকা হয়েছিল। ঘটনাস্থলে উপপরিদর্শক (এসআই) পাঠানো হয়েছিল। ঘটনাটি রহস্যজনক বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা