kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ১ ডিসেম্বর ২০২০। ১৫ রবিউস সানি ১৪৪২

স্কুলের সৌন্দর্য নষ্ট হচ্ছে তাই ১৬ গাছ কর্তন!

পটুয়াখালী প্রতিনিধি   

১ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্কুলের সৌন্দর্য নষ্ট হচ্ছে তাই ১৬ গাছ কর্তন!

সৌন্দর্য নষ্টের অজুহাতে অনুমতি ছাড়াই কাটা হচ্ছে পটুয়াখালীর বাউফলের বীরপাশা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বিভিন্ন প্রজাতির গাছ। ছবি : কালের কণ্ঠ

সৌন্দর্য নষ্ট হচ্ছে—এ অজুহাতে অনুমতি ছাড়াই বীরপাশা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১৬টি গাছ কাটার অভিযোগ উঠেছে প্রধান শিক্ষক মো. নজরুল ইসলামের বিরুদ্ধে। শুধু তাই নয়, তিনি লাখ টাকা দামের গাছ হাজার টাকায় বিক্রি করেছেন বলে অভিযোগ। অথচ সাবেক প্রধান শিক্ষক সৌন্দর্যবর্ধনের জন্যই গাছগুলো লাগিয়েছিলেন। ঘটনাটি পটুয়াখালীর বাউফলের। এ ঘটনায় এলাকার সাধারণ মানুষের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, পাঁচ দিন আগে স্কুলটির ১৪টি মেহগনি, একটি করে শিশু ও বকুলগাছ কাটা শুরু করেন শ্রমিকরা। নিয়ম অনুযায়ী, কোনো প্রতিষ্ঠানের গাছ কাটতে হলে বন বিভাগের অনুমতি নিতে হয়। কিন্তু স্কুলটির প্রধান শিক্ষক তা মানেননি। তার ওপর তিনি গাছগুলো মাত্র ৪০ হাজার টাকায় মো. গিয়াস উদ্দিনের কাছে বিক্রি করেছেন। প্রধান শিক্ষক আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত থাকায় এ কাজ করার সাহস পেয়েছেন। তবে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক নজরুলের দাবি, ‘গাছগুলোর কারণে সৌন্দর্য বিনষ্ট হচ্ছে। আগামী বছর জানুয়ারি মাসে স্কুলের শতবর্ষের অনুষ্ঠান হবে। এ কারণে গাছ কাটার জন্য এলাকাবাসীর চাপ ছিল। তাই অ্যাডহক কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক গাছগুলো কেটে বিক্রি করা হয়েছে। এর আগে সংসদ সদস্য আ স ম ফিরোজ গোল্ডকাপ টুর্নামেন্ট উপলক্ষে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা স্কুলের গাছ কেটে বিক্রি করেছেন। গাছ বিক্রি করে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ সত্য নয়।’ তবে গাছ কাটার আগে বন বিভাগের অনুমতি না নেওয়ার কথা স্বীকার করেছেন তিনি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা