kalerkantho

বুধবার । ৫ কার্তিক ১৪২৭। ২১ অক্টোবর ২০২০। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

বাঘা

পদ্মায় হারিয়ে গেল আরেকটি স্কুল

বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি   

২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাজশাহীর বাঘায় এবার লক্ষ্মীনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি পদ্মা নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। গত বৃহস্পতিবার বিকেলে ৩৭ বছরের পুরনো এ স্কুল নদীর বুকে হারিয়ে যায়। এর আগে গত ২০ আগস্ট আরেকটি স্কুল পদ্মাগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে।

জানা যায়, ১৯৮৭ সালে ৩৩ শতাংশ জমির ওপর লক্ষ্মীনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। নদীগর্ভে বিলীন হতে যাচ্ছে দেখে সম্প্রতি নিলাম ডাকে দুই লাখ ৩৯ হাজার ৯৯৮ টাকায় স্কুল ভবন বিক্রি করে দিয়েছিল কর্তৃপক্ষ।  লক্ষ্মীনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মজিবর রহমান বলেন, ‘চোখের সামনে স্কুলটি পদ্মায় তলিয়ে গেল। শুধু দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে দেখলাম, কিছুই করতে পারলাম না। আর প্রায় ১৬ গজ ভাঙলেই নদীগর্ভে চলে যাবে স্কুলটির জমিও।’ শুধু লক্ষ্মীনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ই নয়, গত আট বছরে পাঁচটি স্কুল নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। চকরাজাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক গোলাম মোস্তফা জানান, ১৯৩৫ সাল থেকে দুর্গম পদ্মার চরে আলো ছড়িয়ে যাচ্ছে ৯টি প্রাথমিক ও দুটি উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়।

২০০৫ সালে চৌমাদিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পদ্মার ভাঙনের কবলে পড়ে। পরে পলাশী ফতেপুর, আতারপাড়া ও চকরাজাপুর উচ্চ বিদ্যালয় নদীর বুকে হারিয়ে যায়। এ বছর চরকালিদাসখালী ও লক্ষ্মীনগর স্কুল দুটি নদীগর্ভে বিলীন হলো।

চকরাজাপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সাত্তার জানান, প্রথমে ১৯৯৮ সালে তাঁদের স্কুল ও চকরাজাপুর বাজার ভাঙনের কবলে পড়ে। ওই বছর সরিয়ে নেওয়ার পর ২০১২ সালে আবারও ভাঙনের মুখে পড়ে তাঁদের স্কুল ও চকরাজাপুর বাজার। পরে কালিদাসখালী মৌজায় সরিয়ে নিলে ২০১৮ সালে ফের ভাঙনের কবলে পড়ে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা