kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৬ কার্তিক ১৪২৭। ২২ অক্টোবর ২০২০। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

জয়ভোগা যেন মাদকের গ্রাম

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুষ্টিয়া   

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জয়ভোগা যেন মাদকের গ্রাম

কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার জয়ভোগা গ্রামে দীর্ঘদিন ধরে চলছে অবাধে মাদক কারবার। চিহ্নিত মাদক কারবারি ও মাদকসেবীদের প্রকাশ্য বিচরণে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে এলাকাবাসী, কিন্তু ভয়ে কেউ মুখ খুলতে পারছে না। প্রশাসনও এ ব্যাপারে নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করছে।

এলাকাবাসী ও স্থানীয় বিভিন্ন সূত্র জানায়, আল্লারদর্গা বাজারসংলগ্ন জয়ভোগা গ্রামে দিন-রাত অবাধে মাদক কারবার চলে আসছে। এই গ্রাম মাদকসেবীদের নিরাপদ স্থান হওয়ায় এখানে নির্বিঘ্নে তারা প্রতিদিন বিকেল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত বিভিন্ন ধরনের মাদক সেবন করে। তবে রাত বাড়তে থাকলে জয়ভোগা গ্রাম মাদকের অভয়ারণ্যে পরিণত হয়।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এলাকার মানুষজন জানায়, জয়ভোগা গ্রামের মৃত কালার ছেলে টগর আলী, আছান আলী, কাদের আলীর ছেলে আতের আলী, আছান আলীর ছেলে সোহাগ, সাদু মণ্ডলের ছেলে সাঈদ, মাথু মণ্ডলের ছেলে মস্তো মণ্ডল ওরফে মস্ত, খোদা বকসের ছেলে রফিকুল ও রফিকুলের ছেলে রুহুল দীর্ঘদিন ধরে জয়ভোগা গ্রামের স্কুলপাড়া, জামে মসজিদ পাড়া এবং আনিকুলের মাছের খামার এলাকায় প্রকাশ্যে মাদক বিক্রি করছে, যা এলাকায় মাদকের হাট নামে পরিচিতি লাভ করেছে। ওই এলাকার তালেবের দোকানসহ বেশ কিছু দোকানপাটেও চলছে মাদকের কারবার। ওই সব দোকান থেকে মাদকসেবীরা ইয়াবা, ফেনসিডিল ও হেরোইন সেবন ও ক্রয় করছে। মাদক বিক্রেতারা ইদানীং জয়ভোগা গ্রামের বাবলু কসাইয়ের বাড়ির ছাদে এবং কামালের বাড়ির ভেতরে মাদক বিক্রির নিরাপদ আস্তানা গড়ে তুলেছে।

এলাকাবাসী জানায়, করোনার কারণে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীদের হাতেও ইয়াবা তুলে দিচ্ছেন মাদক কারবারিরা। জয়ভোগা গ্রামের সরকারি দলের প্রভাবশালী এক স্কুল শিক্ষক মাদক কারবারিদের আশ্রয় দেওয়ায় এলাকার সাধারণ মানুষ তাঁদের বিরুদ্ধে মুখ খোলার সাহস পায় না।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ভুক্তভোগী সচেতন গ্রামবাসীরা বলে, এসব মাদক কারবারির বিরুদ্ধে গোপনে বিভিন্ন দপ্তরে বলা হলেও অজ্ঞাত কারণে তাঁদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

দৌলতপুর থানার উপপরিদর্শক সুব্রত অভিযোগের তদন্ত করতে ওই এলাকায় গিয়ে মাদক কারবারিদের দ্বারা অপমানিত হয়েছেন বলেও অভিযোগ রয়েছে।

দৌলতপুর থানার ওসি নিশিকান্ত সরকার বলেন, ‘এমন কোনো অভিযোগ পাইনি এবং জানাও ছিল না। এখন জানলাম, অভিযান চালানো হবে। মাদক কারবারিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা