kalerkantho

বুধবার । ১৫ আশ্বিন ১৪২৭ । ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০। ১২ সফর ১৪৪২

মুক্তিযোদ্ধার ভাতা আত্মসাৎ প্রতারক কারাগারে

লোহাগড়া (নড়াইল) প্রতিনিধি   

১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নড়াইলের লোহাগড়ায় মুক্তিযোদ্ধার সম্মানী ভাতার টাকা আত্মসাতের অভিযোগে মসিয়ার রহমান নামের এক প্রতারককে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। শহীদ মুক্তিযোদ্ধা মো. মোশোরেফ হোসেনের ভাতার টাকা আত্মসাতের অভিযোগে হওয়া মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা ছিল মসিয়ারের বিরুদ্ধে।

বাদীপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট শেখ আররাফ হোসেন জানান, আসামি মসিয়ার গত মঙ্গলবার নড়াইলের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট দ্বিতীয় আদালতে আত্মসমর্পণ করলে বিচারক মো. মোর্শেদুল আলম তাঁকে জেলহাজতে পাঠিয়ে দেন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার দিঘলিয়া ইউনিয়নের কুমড়ি গ্রামের শহীদ মুক্তিযোদ্ধা মোশোরেফ হোসেনের স্ত্রী-সন্তান না থাকায় সম্মানী ভাতা পেতেন তাঁর বাবা আব্দুর রশিদ শেখ। বাবা রশিদ শেখের মৃত্যুর পর ভাতা পেতেন শহীদের মা মোসা. সখিনা খাতুন। ২০১৭ সালের ১৩ আগস্ট সখিনা খাতুনের মৃত্যুর পর তাঁর বিধবা বড় মেয়ে (শহীদের বোন) বেবী খাতুন ভাতার টাকা পাচ্ছিলেন। তিনি উত্তরাধিকারদের মধ্যে সমবণ্টন করছিলেন। পরে সরকার প্রজন্ম ভাতা ঘোষণা দিলে শহীদের ভাই প্রতারক মসিয়ার রহমান ভুয়া কাগজপত্র দিয়ে বড় বোন বেবী খাতুনের নাম বাদ দিয়ে নিজের নামে ভাতা করিয়ে নেন। একাধিক উত্তরাধিকার থাকা সত্ত্বেও একাই ভাতার টাকা তুলে ভোগ করছিলেন তিনি। এ ঘটনায় বেবী খাতুন গত বছরের ২৫ নভেম্বর নড়াইল আদালতে মামলা করেন। তদন্তের পর গত ৭ সেপ্টেম্বর মসিয়ারের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ এনে চার্জশিট দেয় পিবিআই। আদালত চার্জশিট আমলে নিয়ে মসিয়ারের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা