kalerkantho

বুধবার । ১২ কার্তিক ১৪২৭। ২৮ অক্টোবর ২০২০। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

গোপালগঞ্জ

বন্যায় নষ্ট সবজিক্ষেত

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি   

১২ আগস্ট, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গোপালগঞ্জের বেশ কয়েকটি গ্রামে প্রচুর সবজি চাষ হয়। সবজি বিক্রি করেই চলে তাদের জীবন-জীবিকা। কিন্তু এই বছর বন্যার কারণে কৃষকের স্বপ্নের সবজি ক্ষেত নষ্ট হয়ে গেছে। দীর্ঘদিন ক্ষেতে বন্যার পানি জমে থাকায় সবজি গাছের গোড়া পচে গেছে। এতে ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন কৃষকরা। 

গোপালগঞ্জের সবজি গ্রাম হিসেবে পরিচিত সদর উপজেলার রঘুনাথপুর, সিলনা, টুঙ্গিপাড়া উপজেলার গুয়াধানা, রূপাহাটি, বন্যাবাড়ী, রাখিলা বাড়ী, কোটালীপাড়া উপজেলার ছত্রকান্দাসহ বেশ কয়েকটি গ্রাম। এই গ্রামের প্রায় সবাই জমির পাশাপাশি মাছের ঘেরের পারে সবজি চাষ করে।

গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার রঘুনাথপুর গ্রামের সবজি চাষি তপন বিশ্বাস বলেন, ‘আমার ঘের পারে মিষ্টি কুমড়া, চাল কুমড়া, বরবটি, ঢেঁড়স, পুঁইশাকসহ বিভিন্ন ধরনের সবজি ছিল। বন্যার পানি ঢুকে আমার সব সবজি নষ্ট হয়ে গেছে। আমি এখন সারা বছর কিভাবে বাঁচব—সেই চিন্তায় আছি।’

একই গ্রামের শ্যামল কান্তি মণ্ডল ও অবনী বিশ্বাস; লতিফপুর ইউনিয়নের কাজীর বাজার এলাকার চাষি মঙ্গল মোল্লা জানান, সবজি চাষ করে তা বাজারে বিক্রি করে সংসার চালান তাঁরা। এবার বন্যার পানিতে সব সবজি নষ্ট হয়েছে। সেই সঙ্গে ভেসে গেছে ঘেরের মাছও। এখন সারা বছর কিভাবে চলবেন—এই নিয়ে চিন্তায় আছেন তাঁরা।

এ ব্যাপারে গোপালগঞ্জ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক ড. অরবিন্দ কুমার রায় বলেন, ‘হঠাৎ করে বন্যা ও অতিবৃষ্টিতে সবজি গাছের গোড়া পচে মরে গেছে। জেলার ২৪ শতাংশ সবজি ক্ষেত নষ্ট হয়ে গেছে। পানি দীর্ঘস্থায়ী হলে ক্ষতির পরিমাণ আরো বেড়ে যাবে। তবে পানি কমে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে নতুন করে সবজি লাগানোর জন্য চাষিদের পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।’

মন্তব্য