kalerkantho

শনিবার । ১১ আশ্বিন ১৪২৭ । ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০। ৮ সফর ১৪৪২

থাকল শুধু বই

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, ময়মনসিংহ   

১১ আগস্ট, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাক্প্রতিবন্ধী রেহানা বেগমের (৬০) নামে ভাতা বরাদ্দ হয়েছে ৯ হাজার টাকা। অথচ তিনি পেয়েছেন শুধু বইটি। এর পর থেকে হাউমাউ করে শুধু কাঁদছেন রেহানা। ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার সিংরুইল ইউনিয়নের পশ্চিম কচুরি গ্রামে ঘটেছে এই ঘটনা।

রেহানা ওই গ্রামের মৃত সুবেদ আলীর স্ত্রী। খবর পেয়ে গতকাল সোমবার ওই গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, জরাজীর্ণ কুঁড়েঘরে বাস এই প্রতিবন্ধীর। তিনি জানান, দুই ছেলের মধ্যে এক ছেলে ঢাকায় থেকে গাড়ি চালান এবং ছোট ছেলে পাশের গ্রামে শ্বশুরবাড়িতে থাকেন। চলতি অর্থবছরে ওই নারীর নামে প্রতিবন্ধী ভাতার ব্যবস্থা হয়। এই অবস্থায় ঈদের আগে স্থানীয় তারের ঘাট সোনালী ব্যাংক শাখা থেকে তাঁকে ৯ হাজার টাকা দেওয়া হয়।

ঈদে বেড়াতে আসা বড় ছেলের স্ত্রী তাসলিমা জানান, তিনি জানতে পেরেছেন তাঁর শাশুড়িকে ব্যাংকে নিয়ে যান পাশের গ্রামের আব্দুল লতিফের স্ত্রী মজিদা খাতুন। সঙ্গে ছিলেন তাঁর দেবর বোরহান উদ্দিন। ব্যাংক থেকে ৯ হাজার টাকা তাঁর শাশুড়ির হাতে তুলে দিলেও মজিদা নেন পাঁচ হাজার এবং ছেলে নেন চার হাজার টাকা। পরে বইটি হাতে ধরিয়ে দিয়ে একটি ইজি বাইকে করে বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

অভিযুক্ত মজিদার বাড়িতে গেলে তিনি টাকার নেওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, ‘অফিসের স্যাররারে দিয়া (পিয়ন নুরুল ইসলাম ও আব্দুল মালেক!) এই কার্ডের ব্যবস্থা করছি। তারার খরচ ছাড়াও আমার অনেক পরিশ্রম, সময় ব্যয় ও টাকা খরচ হইছে।’ এই বিষয়ে উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা ইনসান আলী বলেন, ‘ঘটনা তদন্ত করে দেখা হবে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা