kalerkantho

সোমবার । ৬ আশ্বিন ১৪২৭ । ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০। ৩ সফর ১৪৪২

আসামিরা হুমকি দিচ্ছেন বাদীকে

পটুয়াখালী প্রতিনিধি   

১০ আগস্ট, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার কেশবপুর ইউনিয়ন যুবলীগের দুই কর্মী খুনের ঘটনায় আসামিদের গ্রেপ্তারসহ মৃত্যুদণ্ডের দাবি জানিয়েছেন নিহতের স্বজনরা। গতকাল রবিবার দুপুরে কেশবপুর ডিগ্রি কলেজ মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলন করে তাঁরা এই দাবি জানান। নিহত যুবলীগ নেতা রুমনের বড় ভাই ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যক্ষ সালেহ উদ্দিন পিকু লিখিত বক্তব্যে বলেন, ২ আগস্ট সন্ধ্যায় প্রতিপক্ষ ইউপি চেয়ারম্যান, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক  মহিউদ্দিন লাভলু ও তাঁর সাঙ্গপাঙ্গরা যুবলীগ নেতা রুমন ও তাঁর চাচাতো ভাই যুবলীগ কর্মী ইশাতকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে ও পিটিয়ে খুন করেন। এ ঘটনায় মামলা হলেও প্রধান আসামি চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন লাভলুসহ অন্য আসামিদের পুলিশ গ্রেপ্তার করছে না। বরং আসামিরা বাদীপক্ষকে বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন। অধ্যক্ষ সালেহ উদ্দিন অভিযোগ করেন, ৩১ জুলাই দুপুরে কেশবপুর বাজারে চেয়ারম্যান লাভলুর সাঙ্গপাঙ্গরা পিকুর ছোট ভাই হাফিজ উদ্দিন পিন্টু, জোড়া খুন মামলার বাদী মফিজ উদ্দিন মিন্টুসহ ১০ জনকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে জখম করেন। এ ঘটনায় তিনি ওই দিন সন্ধ্যায় মামলা করার জন্য বাউফল থানায় গেলে পরিদর্শক (তদন্ত) আল মামুন তাঁর এজাহার নেননি। তখন পুলিশ এজাহার নিলে এই হত্যাকাণ্ডে ঘটত না। সংবাদ সম্মেলনে ওই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীসহ নিহতদের পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা