kalerkantho

শুক্রবার । ৩০ শ্রাবণ ১৪২৭। ১৪ আগস্ট ২০২০ । ২৩ জিলহজ ১৪৪১

কনস্টেবল স্বামীর নির্যাতনের শিকার ইয়াসমিন আর নেই

জামালপুর প্রতিনিধি   

১৪ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কনস্টেবল স্বামীর নির্যাতনের শিকার ইয়াসমিন আর নেই

পুলিশ কনস্টেবল স্বামীর বর্বর নির্যাতনের শিকার জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জের সেই ব্র্যাককর্মী ইয়াসমিন আক্তার খানম (৪১) আর নেই। স্বামী প্রেমানন্দ ক্ষত্রিয়ের দেওয়া আগুনে মারাত্মকভাবে ঝলসে যাওয়া ইয়াসমিন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের শেখ হাসিনা বার্ন ইউনিটে টানা ১২ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর গতকাল ভোরে মৃত্যুবরণ করেন।

পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, নেত্রকোনা জেলা সদরের পৌর এলাকার সাতপাই লেভেলক্রসিং এলাকার নবাব আলীর মেয়ে ইয়াসমিন জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলায় ব্র্যাকের কর্মসূচি সংগঠক পদে চাকরি করতেন। শেরপুরে শ্রীবরদী থানায় কর্মরত পুলিশ কনস্টেবল প্রেমানন্দ ক্ষত্রিয় তাঁর দ্বিতীয় স্বামী। প্রেমানন্দেরও এটি দ্বিতীয় বিয়ে। প্রেমানন্দ ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা উপজেলার সত্যেন্দ্রনাথ ক্ষত্রিয়ের ছেলে। ইয়াসমিনকে বিয়ে করার পরও প্রেমানন্দ তাঁর প্রথম স্ত্রী ও এক সন্তানের সঙ্গে গোপনে যোগাযোগ রাখায় তাঁদের মধ্যে পারিবারিক কলহ দেখা দেয়। পারিবারিক কলহের জেরে গত ৩০ জুন রাতে দেওয়ানগঞ্জ পৌরসভার বাজারিপাড়া এলাকায় ভাড়া বাসায় প্রেমানন্দ তাঁর স্ত্রী ইয়াসমিনের সারা শরীরে পেট্রল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দিয়ে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা চালান। এ সময় ইয়াসমিনের চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে শরীরে পানি ঢেলে আগুন নিভিয়ে তাঁকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে।

দেওয়ানগঞ্জ মডেল থানার ওসি ময়নুল ইসলাম বলেন, ঘটনার পরপরই কনস্টেবল প্রেমানন্দকে আটক করা হয়। বর্তমানে তিনি কারাগারে রয়েছেন।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা