kalerkantho

শনিবার । ৩১ শ্রাবণ ১৪২৭। ১৫ আগস্ট ২০২০ । ২৪ জিলহজ ১৪৪১

ধুনট

মাস্ক ছাড়াই হাটে পশু বিক্রেতারা

রফিকুল আলম, ধুনট (বগুড়া)   

৯ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



করোনাভাইরাস প্রতিরোধে গণজমায়েত থেকে দূরে থাকার নির্দেশনা থাকলেও তা অমান্য করে বগুড়ার ধুনট উপজেলায় গবাদিপশুর হাট বসছে। করোনা প্রতিরোধের নিয়ম জানা সত্বেও হাটে অসংখ্য মানুষের জমায়েতে ব্যাপকহারে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি দেখা দিয়েছে। তা ছাড়া অনেক পশু বিক্রেতা মাস্ক ছাড়াই হাটে আসছেন। আবার অনেকে মাস্ক না পরে পকেটে নিয়ে ঘুরছেন। এতে উদ্ধিগ্ন সচেতন মহল।

জানা গেছে, উপজেলা সদর, মথুরাপুর, গোসাইবাড়ি ও কান্তনগর গবাদিপশুর হাট বসে। সীমিত পরিসরে ও সামাজিক দূরত্বসহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে হাট পরিচালনার কথা থাকলেও তা মানা হচ্ছে না। সেই সঙ্গে বেশিরভাগ ক্রেতা-বিক্রেতার মুখে মাস্ক নেই। ফলে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা। 

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, হাটগুলোতে গবাদিপশুর পাশপাশি ক্রেতা-বিক্রেতার ভিড়, ধুলো-ময়লা ও গাদাগাদি অবস্থায় চলছে বেচাকেনা। হাঁচি-কাশি দেওয়া, যেখানে সেখানে থুতু ফেলা, হাত মেলানোসহ সবই চলছে। এতে ঝুঁকি বাড়ছে কারোনা সংক্রমণের। তবে ঝুঁকি জেনেও জীবিকার তাগিদেই হাটে এসেছেন বলে জানান ক্রেতা-বিক্রেতারা।

ধুনট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সঞ্জয় কুমার মহন্ত বলেন, ‘হাটে অবশ্যই সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। এটা সবার জন্য ভালো। এছাড়া স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার বিকল্প নেই। বেশি জনসমাগম মানেই করোনার সংক্রামণের ঝুঁকি। হাট সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে আলোচনা করে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা