kalerkantho

শুক্রবার। ২৬ আষাঢ় ১৪২৭। ১০ জুলাই ২০২০। ১৮ জিলকদ ১৪৪১

২৬ দিনে সংক্রমণ বেড়েছে পাঁচ গুণ

রাজশাহী বিভাগে করোনা আক্রান্ত ৪৯৯০ রোগীর মধ্যে সুস্থ হয়েছে ৯৩৩ জন, মারা গেছে ৭২ জন

রফিকুল ইসলাম, রাজশাহী   

৩০ জুন, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



২৬ দিনে সংক্রমণ বেড়েছে পাঁচ গুণ

গত ২ জুন রাজশাহী বিভাগের আট জেলায় করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ছিল ৯৬২ জন। সেখানে ২৮ জুন আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে চার হাজার ৯৯০ জনে। অর্থাৎ গত ২৬ দিনে রোগীর সংখ্যা বেড়েছে ৫ গুণেরও বেশি। এই সময়ে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে ৯ গুণ।

গত ২ জুন রাজশাহী বিভাগে মৃত রোগী ছিল মাত্র আটজন। সেখানে ২৮ জুন মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭২ জনে। এ ছাড়াও প্রতিদিনই করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যাচ্ছে অনেকেই। গত রবিবারও রাজশাহীতে করোনা উপসর্গ নিয়ে চারজনের মৃত্যু হয়েছে।

জানা গেছে, এই বিভাগের এখন অন্যতম হটস্পটে পরিণত হয়েছে বগুড়া, রাজশাহী ও পাবনা শহর। এর মধ্যে প্রায় দুই মাস করোনামুক্ত থাকা রাজশাহী শহরে এখন প্রতিদিন গড়ে ৫০ জন করে রোগী শনাক্ত হচ্ছে। তবে আরো বেশি নমুনা পরীক্ষা গেলে এ সংখ্যা কয়েক গুণ বাড়বে বলেই মনে করছে সচেতন মহল।

এদিকে গত শনিবার সকাল থেকে গত রবিবার সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় রাজশাহী বিভাগে আরো ১৫৮ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে। আর এ সময়ের মধ্যে মারা গেছে আরো দুজন। বিভাগে শনাক্ত হওয়া মোট রোগীর সংখ্যা এখন চার হাজার ৯৯০ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছে ৯৩৩ জন।

রাজশাহী বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. গোপেন্দ্রনাথ আচার্য্য এই তথ্য নিশ্চিত করেন। তবে জেলার তথ্যের সঙ্গে বিভাগের তথ্যের মধ্যে গরমিল লক্ষ্য করা গেছে। রাজশাহীর স্বাস্থ্য বিভাগের মধ্যে সমন্বয়হীনতার কারণেই এমনটি হয়েছে বলে জানা গেছে। এমনকি নমুনা সংগ্রহের জন্য সিভিল সার্জন দপ্তরগুলোর প্রতি আহ্বান জানানো হলেও কোথাও কোথাও ততটা সাড়া মেলেনি বলে অভিযোগ উঠেছে। এর মধ্যে করোনার বিষয়ে জানতে সাধারণ মানুষের ফোন রিসিভ না করাসহ অসহযোগিতার অভিযোগ উঠেছে রাজশাহী জেলা সিভিল সার্জন এনামুল হকের বিরুদ্ধে। একই অভিযোগ বিভাগীয় স্বাস্থ্য কর্মকর্তা গোপেন্দ্রনাথ আচার্য্যের ক্ষেত্রেও।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য কর্মকর্তার দপ্তর সূত্র জানায়, বিভাগের বিভিন্ন হাসপাতালে গত রবিবার পর্যন্ত চিকিৎসা নিয়েছে ৫৪৭ জন করোনায় আক্রান্ত রোগী। মারা গেছে ৭২ জন। আর রাজশাহী বিভাগের পাঁচটি ল্যাবে করোনার নমুনা শনাক্তের কাজ চলছে। এর মধ্যে রাজশাহীতে দুটি, বগুড়ায় দুটি ও সিরাজগঞ্জে একটি ল্যাবে করোনা শনাক্ত হচ্ছে। তবে পাবনার ল্যাবটি চালুর অপেক্ষায় রয়েছে।

জানা গেছে, বিভাগের সর্বোচ্চ আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে বগুড়া জেলায়। সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা দুই হাজার ৭১৩ জন। পরের অবস্থানে রাজশাহী জেলা। সেখানে শনাক্তের সংখ্যা ৫১৩ জন। তৃতীয় অবস্থানে পাবনা। সেখানে শনাক্ত হয়েছে ৪৩০ জন। এ ছাড়া সিরাজগঞ্জে ৩৬৯ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৯৯ জন, নাটোরে ১৫৮ জন, নওগাঁয় ৩৮৪ জন ও জয়পুরহাটে ৩২৪ জন করোনায় আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে।

তবে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে সমন্বয়হীনতার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন রাজশাহী বিভাগীয় স্বাস্থ্য কর্মকর্তা গোপেন্দ্রনাথ আচার্য্য। তিনি বলেন, ‘স্বাস্থ্য বিভাগ সর্বোচ্চভাবে করোনা নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। তবে এ ক্ষেত্রে সাধারণ মানুষকে আরো বেশি সচেতন হতে হবে। এ ছাড়া করোনা প্রতিরোধ করা সম্ভব নয়। ভাইরাসটি দিনের পর দিন ভয়াবহ হয়ে উঠছে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা