kalerkantho

বুধবার । ৩১ আষাঢ় ১৪২৭। ১৫ জুলাই ২০২০। ২৩ জিলকদ ১৪৪১

কুমিল্লা

শহরে সংক্রমণ বাড়ছেই

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুমিল্লা   

৬ জুন, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শহরে সংক্রমণ বাড়ছেই

কুমিল্লা শহরে করোনা সংক্রমণ বেড়েই চলেছে। প্রতিদিনই বিভিন্ন এলাকায় আক্রান্ত হচ্ছে মানুষ। ঘটছে প্রাণহানিও। তবু সতর্ক হচ্ছে না মানুষজন; মানছে না স্বাস্থ্যবিধি। সড়ক ও শপিং মলে উপচে পড়া ভিড় দেখা যাচ্ছে।

কুমিল্লা শহরে দিন দিন বাড়তে থাকা সংক্রমণ ছাপিয়ে গেছে ‘করোনার হটস্পট’খ্যাত জেলার দুই উপজেলা দেবীদ্বার (১৭৩ জন) ও মুরাদনগরকেও (১৫৯ জন)। জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের তথ্য মতে, গতকাল দুপুর ১২টা পর্যন্ত কুমিল্লা সিটি করপোরেশন এলাকায় কভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ২১৬। আর জেলাজুড়ে আক্রান্তের সংখ্যা এক হাজার ২৭১ জন। এর মধ্যে করোনাভাইরাসে জেলায় প্রাণ গেছে ৪১ জনের। এ ছাড়া প্রতিদিনই উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুর ঘটনা ঘটছে। বৃহস্পতিবার রাতে কুমিল্লা শহরে উপসর্গ নিয়ে দুজনের মৃত্যু হয়েছে। এর আগের দিনও মারা গেছে আরো তিনজন।

বিষয়টি নিয়ে স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তা বলছেন, শহরের সব ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান, অফিস-আদালত, বাস টার্মিনাল, রেলস্টেশন ও হাট-বাজার খোলা থাকার কারণে ৩১ মে থেকে রাস্তায় বেরিয়ে এসেছে মানুষ। নগরীর প্রাণকেন্দ্র কান্দিরপাড়, শাসনগাছা, চকবাজার, রাজগঞ্জসহ প্রধান প্রধান সড়কে যানবাহনের ভিড়।

এদিকে কুমিল্লায় করোনা পরীক্ষা নিয়েও বিভ্রান্তিকর তথ্য পাওয়া যাচ্ছে। কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজের পিসিআর ল্যাবের পরীক্ষায় কুমিল্লার নাঙ্গলকোটের সাত চিকিৎসকসহ ৯ জনের করোনা পজিটিভ রিপোর্ট দিলে ঢাকার আইইডিসিআরের পরীক্ষায় তাদের সবারই নেগেটিভ এসেছে। তবে নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নমুনা সংগ্রহকারী দুই ল্যাব টেকনোলজিস্টের করোনা পরীক্ষার ফল কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজের পিসিআর ল্যাব থেকে নেগেটিভ দিলেও পুনরায় ঢাকার আইডিসিআরে পরীক্ষা করে পজিটিভ পাওয়া গেছে।

কুমিল্লায় করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহবান  জানিয়েছেন সিভিল সার্জন ডা. নিয়াতুজ্জামান। তিনি বলেন, ‘কুমিল্লায় করোনা সংক্রমণ বাড়ছেই। আগে উপজেলা পর্যায়ে আক্রান্ত ছিল বেশি। কিন্তু ইদানীং শহর এলাকায় রোগী বাড়ছে। তাই শহরবাসীকে সচেতন ও সতর্ক হতে হবে। তা না হলে আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন বাড়তেই থাকবে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা