kalerkantho

সোমবার । ২২ আষাঢ় ১৪২৭। ৬ জুলাই ২০২০। ১৪ জিলকদ  ১৪৪১

পুলিশের নারী সদস্যকে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টা

মাদারীপুর সদর মডেল থানার প্রশিক্ষণকালীন উপপরিদর্শক অনিমা বাড়ৈকে গলা কেটে হত্যার চেষ্টা চালায় এক যুবক

মাদারীপুর প্রতিনিধি   

৭ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মাদারীপুর সদর মডেল থানার প্রশিক্ষণকালীন উপপরিদর্শক (পিএসআই) অনিমা বাড়ৈকে গলা কেটে হত্যাচেষ্টা করা হয়েছে। গত রবিবার রাত ১১টার দিকে শহরের লেকের পারে পুলিশ সুপার কার্যালয়ের পাশেই পৌর শিশু পার্কের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

অনিমা বাড়ৈর বাড়ি গোপালগঞ্জ জেলার ভাঙ্গারহাট এলাকায়। গুরুতর অনিমাকে রাতেই বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে তাঁর গলায় অপারেশন করা হয়। এখনো তিনি পুরোপুরি শঙ্কামুক্ত নন।

পুলিশ সূত্রে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, আহত অনিমা বাড়ৈর পরিচিত বগুড়া জেলার রনবীর এ ঘটনা ঘটিয়েছেন। তাঁকে ধরার জন্য অভিযান চলছে।

এ বিষয়ে মাদারীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোহাম্মদ বদরুল আলম মোল্লা বলেন, ‘গত তিন মাস আগে অনিমা বাড়ৈ মাদারীপুর সদর মডেল থানায় পিএসআই হিসেবে যোগদান করেন। রবিবার রাত ১১টার দিকে অনিমা থানায় ডিউটি শেষ করে পুলিশ লাইনসে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে পৌর শিশু পার্কের সামনে এলে আগে থেকে ওত পেতে থাকা রনবীর নামের এক যুবক তাঁকে হত্যার জন্য গলায় ছুরি দিয়ে কুপিয়ে পালিয়ে যায়। এ সময় স্থানীয় লোকজন আহত অনিমাকে উদ্ধার করে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখান থেকে আমরা তাঁকে উন্নত চিকিত্সার জন্য রাতেই দ্রুত বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠাই। রাতেই তাঁর গলায় অপারেশন করা হয়। তিনি এখনো শঙ্কামুক্ত নন। ঘটনাস্থল থেকে একটি ছুরি ও এক জোড়া স্যান্ডেল উদ্ধার করা হয়েছে। ঘাতক রনবীরকে ধরতে রাত থেকেই আমরা কয়েকটি টিম মাঠে নেমেছি।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা