kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ২ জুন ২০২০। ৯ শাওয়াল ১৪৪১

তিস্তা সেচ খালের পার ভেঙে প্লাবিত ৮ গ্রাম

রংপুরের তারাগঞ্জে ১০০ হেক্টর জমির ফসল নষ্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর   

৬ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



তিস্তা সেচ খালের পার ভেঙে প্লাবিত ৮ গ্রাম

রংপুরের তারাগঞ্জে গতকাল তিস্তা সেচ খালের পার ভেঙে প্লাবিত হয় কয়েকটি গ্রাম। ছবি : কালের কণ্ঠ

করোনাভাইরাস আতঙ্কে সর্বত্র মানুষ যখন দিশাহারা ঠিক তখনই দেশের সর্ববৃহৎ সেচ প্রকল্প তিস্তা ব্যারাজের খালের পার ভেঙে আট গ্রাম প্লাবিত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এতে পানির নিচে তলিয়ে গেছে ওই সব গ্রামের রাস্তাঘাটসহ প্রায় ১০০ হেক্টর জমির ফসল। গতকাল সকালে রংপুরের তারাগঞ্জে এ ঘটনা ঘটে। ক্যানেল ভেঙে কয়েকটি গ্রাম প্লাবিত হওয়ার খবর পেয়ে স্থানীয় প্রশাসন, সেনাবাহিনী, ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরাসহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

স্থানীয়রা জানায়, গতকাল সকাল সাড়ে ৮টার দিকে তারাগঞ্জ উপজেলার কুর্শা এলাকায় তিস্তা ব্যারাজের সেচ ক্যানেলের পার ভেঙে যায়। এতে উপজেলার মিস্ত্রিপাড়া, দক্ষিণপাড়া, ডাঙ্গাপাড়া, হাজিপাড়া, বড়বাড়ী, আখিরারপাড়সহ আটটি গ্রাম প্লাবিত হয়।

কুর্শা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আফজালুল হক সরকার জানান, পার ভেঙে যাওয়ার পর থেকে পানির তীব্র স্রোতে গ্রামের পর গ্রাম প্লাবিত হচ্ছে। তাঁর নিজের বাড়িসহ গ্রামের অসংখ্য ঘরবাড়িতে পানি ঢুকেছে।

এদিকে স্থানীয় ক্ষতিগ্রস্ত লোকজনের দাবি, সেচ ক্যানেলের পারের নিচের দিকে মাটি নরম হওয়ায় পার ভেঙে যাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এর আগে ওই পারের পাশে ছোট ছোট গর্ত তৈরি হয়েছিল। তাদের ধারণা, দীর্ঘদিন সেচ ক্যানেল সংস্কার না করায় মাটি নরম ও গর্ত থেকেই এ সেচ ক্যানেলের পার ভেঙে গেছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম বলেন, ‘কুর্শা ইউনিয়নের অনন্তপুর এলাকায় সেচ ক্যানেলের একাংশ ভেঙে কয়েকটি পাড়া প্লাবিত হয়েছে। এতে আবাদি জমিসহ নিচু এলাকায় পানি ঢোকায় কৃষক ও মৎস্য চাষিরা ক্ষতিগ্রস্ত হবেন।’

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে পানি উন্নয়ন বোর্ডের সেচ প্রকল্পের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আব্দুস শহীদ বলেন, ‘পানি এখন নিয়ন্ত্রণে। তবে ভেঙে যাওয়া অংশ মেরামতের চেষ্টা চলছে।’ ভেঙে যাওয়ার কারণ সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘ওই এলাকায় ক্যানেলটি খুবই মজবুত ছিল। বিভিন্ন এলাকায় মানুষ ক্যানেল ফুটো করে জমিতে চুরি করে পানি নেয়। সেই কারণে হোক আর ইঁদুরের গর্তের কারণেই হোক—ক্যানেলটি ভেঙে গেছে। ভাঙা অংশ মেরামতের পর ভেঙে যাওয়ার কারণ অনুসন্ধান করা হবে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা