kalerkantho

শনিবার । ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৬ জুন ২০২০। ১৩ শাওয়াল ১৪৪১

গাইবান্ধা

ভাটার ঝুলন্ত তারে প্রাণ গেল মা-ছেলের

গাইবান্ধা প্রতিনিধি   

৫ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গাইবান্ধার সাদুল্যাপুরে ইটভাটার ঝুলন্ত তারে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মা-ছেলের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। এ জন্য এসএসবি ব্রিকস নামে ওই ভাটার মালিক শহিদুল ইসলাম বাবলাকে দায়ী করছে মৃতদের পরিবার। খবর পেয়ে পুলিশ গতকাল শনিবার মা-ছেলের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

মৃতরা হলো নুরপুর দক্ষিণপাড়া গ্রামের বাদল চন্দ্র সরকারের স্ত্রী সাধনা রানী ও তাঁর ছোট ছেলে উৎপল চন্দ্র সরকার। উৎপল সাদুল্যাপুর সরকারি কলেজের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ছিল। এ ব্যাপারে সাধনার বড় ছেলে সবুজ কুমার ওই ভাটা মালিকের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।

এদিকে ওই ভাটার মালিকসহ স্থানীয় কয়েকজন প্রভাবশালী ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বাঁশের খুঁটির সাহায্যে নিজের ভাটায় বিদ্যুতের লাইন টেনে নেন মালিক বাবলা। সম্প্রতি ওই খুঁটি থেকে তার খুলে নুরপুর দক্ষিণপাড়া গ্রামের মনি মিয়ার ধানের জমির ওপর ঝুলে পড়ে। বিষয়টি বাবলাকে বারবার জানিয়েও কোনো কাজ হয়নি বলে অভিযোগ। এর মধ্যে শুক্রবার বিকেলে ওই জমিতে কীটনাশক ছিটানোর সময় ঝুলন্ত তারটির মাধ্যমে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয় উৎপল। এ সময় ছেলেকে বাঁচাতে গিয়ে মা সাধনাও বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন। পরে ঘটনাস্থলেই মা-ছেলের মৃত্যু হয়।

এ বিষয়ে জানতে অভিযুক্ত ভাটার মালিক বাবলার সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাঁকে পাওয়া যায়নি।

সাদুল্যাপুর থানার পরিদর্শক মো. মাসুদ রানা বলেন, ‘স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে মা-ছেলের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় মৃতের বড় ছেলে লিখিত অভিযোগ করেছেন। ঘটনাটি তদন্ত করা হচ্ছে। দ্রুতই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা