kalerkantho

রবিবার। ২৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৭ জুন ২০২০। ১৪ শাওয়াল ১৪৪১

সহায়তার তালিকা নিয়ে চেয়ারম্যান-মেম্বার দ্বন্দ্ব

ভাঙ্গুড়া (পাবনা) প্রতিনিধি   

৩ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



করোনাভাইরাসের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত স্বল্প আয়ের পরিবারকে সহায়তা প্রদানের তালিকা নিয়ে পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলার খানমরিচ ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের মধ্যে দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হয়েছে। তাতে যথাসময়ে সরকারি সহায়তা দেওয়া সম্ভব হয়নি। এদিকে এ ঘটনায় ইউপি মেম্বারদের বিরুদ্ধে ত্রাণ বিতরণে বাধাদানের অভিযোগ তুলে গত বুধবার রাতে ভাঙ্গুড়া থানায় মামলা করেছেন ইউপি চেয়ারম্যান।

জানা গেছে, উপজেলার খানমরিচ ইউনিয়নে প্রায় ২৫ হাজার মানুষের বসবাস। যাদের বেশির ভাগই দরিদ্র। বর্তমান পরিস্থিতিতে উপজেলা প্রশাসন প্রথম পর্যায়ে এই ইউনিয়নে ২৮৩ জন দুস্থ পরিবারের তালিকা চায় ইউপি চেয়ারম্যানের কাছে। তিনি গোপনে উপজেলা প্রশাসনকে তালিকা পাঠান। ওই তালিকায় মেম্বারদের স্বাক্ষর না থাকায় তা ফেরত পাঠায় উপজেলা প্রশাসন। পরে চেয়ারম্যান প্রত্যেক মেম্বারের কাছে ১০টি করে পরিবারের তালিকা চান। গত বুধবার দিনভর তালিকা নিয়ে চেয়ারম্যান-মেম্বারদের মধ্যে বাগিবতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে চেয়ারম্যানের ছেলে ও তাঁর লোকজনের সঙ্গে মেম্বারদের হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

খানমরিচ ইউপি সদস্য আলমগীর হোসেন বলেন, অসহায়-দুস্থ পরিবারকে বাদ দিয়ে চেয়ারম্যান নিজের পছন্দমতো ব্যক্তিদের তালিকাভুক্ত করেছেন। এর প্রতিবাদ করায় চেয়ারম্যানের ছেলেসহ তাঁর লোকজন মেম্বারদের হুমকি দিচ্ছেন। এখন তিনি ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে মিথ্যা মামলা করে মেম্বারদের হয়রানি করতে চাচ্ছেন।

তবে খানমরিচ ইউপি চেয়ারম্যান আসাদুর রহমান বলেন, ‘মেম্বারদের বাধার কারণে সময়মতো অসহায় দুস্থদের মাঝে সরকারি সহায়তা দেওয়া সম্ভব হয়নি। এই কারণে মেম্বারদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছি।’

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ আশরাফুজ্জামান বলেন, চেয়ারম্যান-মেম্বারদের দ্বন্দ্বের অবসান না ঘটলেও চেয়ারম্যানের দেওয়া তালিকা অনুসারে উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাদের দিয়ে ওই ইউনিয়নের সাড়ে তিন শ পরিবারের কাছে ত্রাণসামগ্রী পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। তালিকায় অনিয়ম পাওয়া গেলে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তা ছাড়া আরো ৫০০ পরিবারের তালিকা তৈরি করে দ্রুত ত্রাণ পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা