kalerkantho

বুধবার । ২০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৩ জুন ২০২০। ১০ শাওয়াল ১৪৪১

ভাঙ্গুড়া

সিঙ্গাপুরফেরত ভাগ্নের সংস্পর্শে অসুস্থ মামা

ভাঙ্গুড়া (পাবনা) প্রতিনিধি   

২৮ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সিঙ্গাপুরফেরত ভাগ্নের সংস্পর্শে অসুস্থ মামা

পাবনার ভাঙ্গুড়া পৌর শহরের মসজিদপাড়া মহল্লার একজন ব্যবসায়ী সর্দি-জ্বরে আক্রান্ত হয়েছেন। গত সপ্তাহে ঢাকায় সিঙ্গাপুরফেরত ভাগ্নের বাসায় ছিলেন তিনি। সেখান থেকে ভাঙ্গুড়ায় ফেরার পরই সর্দি-জ্বরে আক্রান্ত হন। তিনি এখন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের তত্ত্বাবধানে হোম কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন।

জানা যায়, ওই ব্যবসায়ীর পৈতৃক বাড়ি ঢাকার বিক্রমপুরে। তবে তিনি কয়েক যুগ ধরে ভাঙ্গুড়া পৌর শহরের মসজিদপাড়া মহল্লায় পরিবারসহ বসবাস করেন। ভাঙ্গুড়া বাজারে তাঁর গ্লাস ও থাই অ্যালুমিনিয়ামের ব্যবসা রয়েছে।

দেশের বিভিন্ন এলাকায় বহুতল ভবনের গ্লাস ও থাই অ্যালুমিনিয়াম ব্যবহার করে দরজা ও জানালা লাগানোর অর্ডার নিয়ে কাজ করেন তিনি। গত সপ্তাহে ঢাকার বিক্রমপুরে একটি মসজিদের জানালা ও দরজা লাগানোর অর্ডার পেয়ে সেখানে যান। এ সময় ওই এলাকায় তাঁর এক ভাগ্নের বাড়িতে অবস্থান করেন। সম্প্রতি তিনি সিঙ্গাপুর থেকে দেশে এসেছেন।

গত সোমবার মসজিদের কাজ শেষ করে ভাঙ্গুড়া ফিরে আসেন ওই ব্যবসায়ী। এরপর তিনি সর্দি-জ্বরে আক্রান্ত হন। বিষয়টি তিনি প্রথমে গোপন রাখলেও প্রতিবেশীরা ভাঙ্গুড়া পৌর মেয়র ও উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে জানিয়ে দেয়। গত বুধবার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক আব্দুল হান্নানের নেতৃত্বে একটি টিম ওই ব্যবসায়ীর বাড়িতে যায়। তারা সেখানে তাঁর প্রাথমিক স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশ দেয়।

সর্দি-জ্বরে আক্রান্ত ওই ব্যবসায়ী বলেন, ‘একটি মসজিদের কাজের অর্ডার পেয়ে ঢাকার বিক্রমপুরে গিয়েছিলাম। সেখানে কয়েক দিন সিঙ্গাপুরফেরত এক ভাগ্নের সঙ্গে অবস্থান করি। আমার মনে হয়, সেখানকার নতুন পানি ব্যবহার করায় আমি অসুস্থ হয়ে পড়েছি। তবে এখন ভালো আছি।’

উপজেলা স্বাস্থ্য পরিদর্শক নুরুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘সর্দি-জ্বরে আক্রান্ত ওই ব্যবসায়ীকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। বর্তমানে তিনি অনেকটা ভালো আছেন। আশা করি, দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠবেন।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা