kalerkantho

সোমবার । ২৩ চৈত্র ১৪২৬। ৬ এপ্রিল ২০২০। ১১ শাবান ১৪৪১

ঝালকাঠি

ভাষাসৈনিকের বাড়িতে ছাত্রলীগের হামলা

ঝালকাঠি প্রতিনিধি   

২৭ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ভাষাসৈনিকের বাড়িতে ছাত্রলীগের হামলা

ঝালকাঠি শহরের পূর্বচাঁদকাঠিতে ভাষাসৈনিক লাইলি বেগমের বাড়িতে হামলা চালিয়ে তাঁর চার মেয়ে ও দুই নাতনিকে মারধর করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে লাইলি বেগমের মেয়ে মুসলিমা খাতুনের একটি হাত ভেঙে গেছে। তাঁকে ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

হামলার শিকার লাইলি বেগমের মেয়ে শাহিন পারভীন নাজমার অভিযোগ, গত বুধবার সকাল ১০টায় স্থানীয় ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক মো. মাঈনুল ইসলাম, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক জিয়াউল করিম জয় ওরফে সুজন ও নান্নু মুনশীর নেতৃত্বে ১০ থেকে ১২ জন বাড়িতে এসে এক লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। এবং রাত ৮টার মধ্যে টাকা রেডি রাখতে বলে। পরে রাত ৮টার দিকে মাঈনুল ইসলাম, সুজন ও নান্নু মুনশীর নেতৃত্বে ২৫ থেকে ৩০ জন সন্ত্রাসী এক লাখ টাকা দাবি করে। চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় ঘরের দরজা-জানালা ও বাড়ির সামনের দোকান ভাঙচুর করে। এ সময় নাজমার বোন মুসলিমা খাতুন বাধা দিতে এলে তাঁকেও পিটিয়ে আহত করা হয়। এতে মুসলিমার একটি হাত ভেঙে যায়। আহতদের চিৎকারে স্থানীয় লোকজন ছুটে এলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। মুসলিমা বেগমকে ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ঘটনায় শাহিন পরভীন নাজমা বাদী হয়ে বুধবার রাতেই ঝালকাঠি থানায় মাঈনুল ইসলাম, জিয়াউল করিম সুজন, নান্নু মুনশীর নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতপরিচয় আরো ২০ থেকে ২৫ জনকে আসামি করে অভিযোগ দায়ের করেন।

এদিকে অপর পক্ষের অভিযোগ, করোনাভাইরাস প্রতিরোধে শাহিন পরভীন নাজমার বাড়ির সামনে পৌরসভার পক্ষ থেকে সাধারণ মানুষের হাত ধোয়ার জন্য একটি বেসিন বসানো হয়। বুধবার দিনের যেকোনো সময় সেটি ভেঙে পাশের খালে ফেলা হয়। স্থানীয় কিছু যুবকের দাবি নাজমার পরিবার এ কাজ করেছে।

এ ব্যাপারে শাহিন পারভীন নাজমা বলেন, ‘সামাজিকভাবে আমাদের জব্দ করতে মিথ্যা অপবাদ ছড়ানো হচ্ছে।’ হামলার অভিযোগে অভিযুক্ত সদর উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক মাঈনুল ইসলাম বলেন, ‘হামলা বা চাঁদা দাবির কোনো ঘটনা ঘটেনি। কিছু ছোট ভাইরা বেসিন ভাঙার কারণ জানতে চাইলে নাজমা এবং তাঁর মেয়ে ও বোনের মেয়েরা দা-বঁটি নিয়ে হামলা করে। এতে আমাদের এক ছোট ভাই গোপাল আহত হয়।’

এ বিষয়ে ঝালকাঠি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. খলিলুর রহমান বলেন, ‘শাহিন পারভীন নাজমার একটি চাঁদা দাবি, ভাঙচুর ও স্বর্ণালংকার ছিনিয়ে নেওয়ার লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। ঘটনার প্রাথমিক সত্যতা যাচাইয়ে জন্য পুলিশ পাঠানো হয়েছে। ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা