kalerkantho

রবিবার  । ১৫ চৈত্র ১৪২৬। ২৯ মার্চ ২০২০। ৩ শাবান ১৪৪১

শহীদ বাবার জন্য...

বিশেষ প্রতিনিধি, যশোর   

২৬ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মুক্তিযুদ্ধে শহীদ দুই বাবার মর্যাদা রক্ষার জন্য দীর্ঘ ২৩ বছর ধরে বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে ঘুরছেন দুই ছেলে। তাঁদের একজন থাকেন কুমিল্লায়, আরেকজন খুলনায়। এরই মধ্যে দুজনের মধ্যে ভাইয়ের সম্পর্ক গড়ে উঠেছে। অনেক দৌড়ঝাঁপ করে ১৯৯৭ সালে বাবার কবর পাকা করেছেন তাঁরা। এখন সেই পাকা কবর সরকারিভাবে সংরক্ষণের জন্য স্থানীয় প্রশাসনের কাছে, মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয়ের কাছে ধরনা দিচ্ছেন।

জানা যায়, ১৯৭১ সালের ৫ এপ্রিল লোন অফিসপাড়ার সরকারি বাসভবনে অ্যাকোয়ার্ড স্টেট ডিপার্টমেন্টের কর্মকর্তা (বর্তমানে ভূমি মন্ত্রণালয়) এ বি এম মোসলেহ উদ্দিনকে গুলি করে হত্যা করে হানাদার বাহিনী। একই সঙ্গে আরেক কর্মকর্তা কানুনগো আব্দুল জব্বারকেও হত্যা করা হয়। কয়েক দিন পর প্রতিবেশী আর কাবুলিওয়ালারা একটি গর্ত করে ওই দুই শহীদ কর্মকর্তাকে বাসভবনের সীমানার মধ্যে একসঙ্গে দাফন করে। পরে কবরটি বাঁশের বেড়া দিয়ে ঘিরে রাখা হয়। ওই দুই শহীদ কর্মকর্তার ছেলে মো. এমদাদ মোসলেম এবং জাহাঙ্গীর আলম স্বপন কয়েকবার যশোরে এসে কবর সংরক্ষণের চেষ্টা চালান। শেষমেশ ১৯৯৭ সালে স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগিতায় কবরটি পাকা করা হয়। পরে তাঁরা কবরটি সরকারিভাবে সংরক্ষণের জন্য স্থানীয় প্রশাসন এবং মুক্তিযুুদ্ধ মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেন।

এমদাদ বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয় শহীদ দুই সরকারি কর্মকর্তার কবর যথাযথভাবে সংরক্ষণের জন্য স্থানীয় প্রশাসনকে নির্দেশনা দেয়। কিন্তু দীর্ঘদিনেও আমাদের দাবি পূরণ হয়নি।’ জাহাঙ্গীর বলেন, ‘বাবার জন্য কষ্টের শেষ নেই। কুমিল্লা থেকে যশোরে এসে বাবা-চাচাকে স্মরণ করি। স্থানীয় মসজিদে দোয়া মাহফিলের আয়োজন করি। আমরা যথাযথভাবে বাবার কবর সংরক্ষণের জন্য স্থানীয় প্রশাসনের কাছে দাবি জানাই।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা