kalerkantho

শুক্রবার । ৩০ শ্রাবণ ১৪২৭। ১৪ আগস্ট ২০২০ । ২৩ জিলহজ ১৪৪১

উলিপুরে অপহরণের পর হত্যাচেষ্টা আটক ৪

উলিপুর (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি   

২৬ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কুড়িগ্রামের উলিপুরে এক যুবককে ব্রহ্মপুত্র নদের নির্জন চরে নিয়ে যাওয়ার সময় একদল দুর্বৃত্তকে আটক করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে জনতা। ঘটনাটি ঘটেছে গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলার হাতিয়া ইউনিয়নের পালের ভিটায়। এ ঘটনায় চারজনকে আটক করা হয়েছে।

জানা গেছে, উপজেলার ধরনীবাড়ী ইউনিয়নের মাদারটারী গ্রামের ইউসুফ আলীর মেয়ে সুলতানার সঙ্গে সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ উপজেলার সরাই হাজীপুর গ্রামের আফছার আলীর পুত্র রাকিবুল ইসলামের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। একপর্যায়ে তাঁরা বিয়ে করেন। গত সোমবার রাকিবুল শ্বশুরবাড়িতে বেড়াতে আসেন। মঙ্গলবার দুপুরে স্থানীয় দুর্বৃত্তরা ইসমোতারার বাড়িতে এসে তাঁদের বিয়ের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে। একপর্যায়ে রাকিবুলকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায়। শারীরিকভাবে নির্যাতন করে ফাঁকা স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর করাসহ মুক্তিপণ দাবি করে। পরে ব্যর্থ হয়ে ওই দিন গভীর রাতে তাঁকে হত্যার উদ্দেশ্যে ব্রহ্মপুত্র নদে নিয়ে যায়। এ সময় তাঁর চিৎকারে স্থানীয় লোকজন ছুটে এসে ব্রহ্মপুত্র নদের পার পালের ভিটা নামক স্থানে চক্রটিকে আটক করে ৯৯৯-এ ফোন দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ধরনীবাড়ী ইউনিয়নের মধুপুর গ্রামের শামসুল হকের ছেলে চাকরিচ্যুত সেনা সদস্য এরশাদুল হক। একই ইউনিয়নের মাদারটারী গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে মাহাবুব আলম, আব্দুল লতিফের ছেলে রাশেদুল ইসলাম ও ওমর আলীর ছেলে আব্দুল মান্নানকে আটক করে। এ সময় মাদারটারী গ্রামের আব্দুর রহিম (সাধু) মিয়ার ছেলে পলাশ মিয়া পালিয়ে যায়। পরে রাকিবুল ইসলাম বাদী হয়ে আটজনের বিরুদ্ধে উলিপুর থানায় মামলা দায়ের করেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা