kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ২৬ চৈত্র ১৪২৬। ৯ এপ্রিল ২০২০। ১৪ শাবান ১৪৪১

বরিশালে ছাত্রলীগ নেত্রী খুন

নেত্রকোনায় নিখোঁজ বৃদ্ধের লাশ

বরিশাল অফিস ও মদন (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি   

২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বরিশালে গতকাল মঙ্গলবার ছাত্রলীগ নেত্রী হেনা আক্তারকে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাঁর স্বামী ছাত্রলীগ নেতা সোহাগ ওরফে পাসপোর্ট সোহাগকে আটক করেছে পুলিশ।

হেনা সরকারি বিএম কলেজ ছাত্রলীগের সদস্য ছিলেন। আর সোহাগ জেলা ছাত্রলীগের সদস্য। নগরীর সার্কুলার রোডে ভাড়া বাসায় থাকতেন তাঁরা। 

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গতকাল সকালে হেনাকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসেন তাঁর স্বামী সোহাগ। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে সুরতহাল প্রতিবেদনে হেনার শরীরে আঘাতের চি পাওয়া যায়। এ ঘটনায় হাসপাতাল থেকেই সোহাগকে আটক করা হয়। অন্যদিকে হেনার স্বজনদের অভিযোগ, সোহাগ ও হেনার মধ্যে পারিবারিক কলহ ছিল। মাঝেমধ্যেই স্ত্রীকে মারধর করতেন সোহাগ। এ নিয়ে বেশ কয়েকবার স্থানীয়ভাবে সালিস-মীমাংসাও হয়েছে।

জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ছাত্রলীগ নেতা সোহাগকে আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বরিশাল কোতোয়ালি মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এম আর মুকুল। তিনি বলেন, ‘মঙ্গলবার সকালে হেনাকে (বরিশাল) শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসে তাঁর স্বামী সোহাগ। তাঁর দাবি ছিল, হেনা আত্মহত্যা করেছেন। তবে আমরা হেনার শরীরে আত্মহত্যার কোনো লক্ষণ পাইনি। কিন্তু সুরতহাল প্রতিবেদনে শরীরে আঘাতের চি পাওয়া গেছে। তবে এটি হত্যা না আত্মহত্যা—ময়নাতদন্তের আগে স্পষ্ট কিছু বলা যাবে না।’ 

অন্যদিকে নেত্রকোনার মদনে নিখোঁজের এক দিন পর বৃদ্ধ সিদ্দিকুর রহমানের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল বিকেলে গোবিন্দশ্রী বালই নদীর পার থেকে তাঁর লাশ উদ্ধার করা হয়। লাশের জামার পকেটে কীটনাশকের ছোট বোতল পাওয়া গেছে। সিদ্দিকুর মদন পৌর এলাকার মাহমুদপুরে থাকতেন। ঘটনার আগের দিন সোমবার দেওয়ান বাজার থেকে নিখোঁজ হন তিনি। মদন থানার ওসি মো. রমিজুল হক জানান, লাশের ময়নাতদন্তের জন্য নেত্রকোনার মর্গে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা