kalerkantho

সোমবার । ২২ আষাঢ় ১৪২৭। ৬ জুলাই ২০২০। ১৪ জিলকদ  ১৪৪১

মাগুরায় ফুল দেওয়ার সময় ছাত্রদলের হাততালি

ছাত্রলীগের সঙ্গে হাঙ্গামায় আহত ৩

মাগুরা প্রতিনিধি   

২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মাগুরায় ফুল দেওয়ার সময় ছাত্রদলের হাততালি

মাগুরায় শহীদ মিনারে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণকালে যুবদল, ছাত্রদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীরা হাততালি দিয়েছে বলে অভিযোগ। এর জেরে ছাত্রলীগকর্মী ও তাদের মধ্যে ধাওয়াধাওয়ির ঘটনা ঘটে। এ সময় একপক্ষ আরেক পক্ষের দিকে ইট-পাটকেল ছুড়ে মারে। একুশের প্রথম প্রহরে শহরের হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ শহীদ মিনার চত্বরে ঘটনাটি ঘটে।

এ সময় জেলা যুবদলের সদস্য রুমি হোসেন, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম সম্পাদক বিল্লাল মিশরী ও আদর্শ কলেজ ছাত্রদলের সাবেক আহ্বায়ক ইফতেখার হোসেন অংকুর আহত হন বলে অভিযোগ। তাঁদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

আবুল হাসনাতসহ কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী জানান, শহীদ মিনারে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণকালে দলীয় স্লোগানের সঙ্গে হাততালিও দেন যুবদল, ছাত্রদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীরা। এ সময় ঘোষণা মঞ্চ থেকে তাঁদের হাততালি দিতে নিষেধ করা হয়। কিন্তু তাঁরা সেটা মানেননি। পুষ্পার্ঘ্য দেওয়ার পর তাঁরা কলেজ গেটের বাইরে এলে ছাত্রলীগের কিছু কর্মী পেছন থেকে তাঁদের ধাওয়া করে। এ সময় দুই পক্ষের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া শুরু হয়। এ ছাড়া একপক্ষ আরেক পক্ষের দিকে ইট-পাটকেল ছুড়ে মারে। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ।

উত্তেজনা থেকে দুই পক্ষের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া শুরু হয়। আমরা দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ায় তাৎক্ষণিকভাবে পরিস্থিতি শান্ত হয়েছে।

সাইফুল ইসলাম

ওসি, মাগুরা সদর থানা

জেলা ছাত্রদলের সভাপতি আব্দুর রহিমের অভিযোগ, ‘ঘোষণা মঞ্চ থেকে নিষেধ করার পর আমাদের নেতাকর্মীরা সেটি (হাততালি দেওয়া) বন্ধ করে। তবু কলেজ গেট দিয়ে বের হওয়ার সময় পূর্বপরিকল্পিতভাবে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা অতর্কিতে হামলা চালান। এতে রুমি, বিল্লাল ও ইফতেখার আহত হন।’

অন্যদিকে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আলী হোসেন মুক্তার দাবি, ‘উদ্দেশ্যমূলকভাবে যুবদল, ছাত্রদল, স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীরা নানা উনকানিমূলক স্লোগান ও হাততালি দিচ্ছিলেন। ঘোষণা মঞ্চ থেকে বারবার এ বিষয়ে সতর্ক করা হচ্ছিল। কিন্তু তাঁরা এটি থেকে নিবৃত্ত হননি। এ সময় উপস্থিত জনতাই তাঁদের ধাওয়া করে, ছাত্রলীগ নয়।’

এ বিষয়ে মাগুরা সদর থানার ওসি সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘উত্তেজনা থেকে দুই পক্ষের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া শুরু হয়। আমরা দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ায় তাৎক্ষণিকভাবে পরিস্থিতি শান্ত হয়েছে। আহতের কোনো খবর পাইনি।’

মন্তব্য