kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ২৯  মে ২০২০। ৫ শাওয়াল ১৪৪১

কুড়িগ্রামে অসময়ে ব্রহ্মপুত্রের ভাঙন

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি   

২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কুড়িগ্রামে অসময়ে ব্রহ্মপুত্রের ভাঙন

ঘর-বাড়ি ভেঙে নিয়েছে প্রমত্ত ব্রহ্মপুত্র। মাথা গোঁজার ঠাঁই না থাকায় আকাশের নিচে ভাঙা ঘর টাঙিয়ে রেখেছেন কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার চর যাত্রাপুরের শহিদুল ইসলাম। ছবি : কালের কণ্ঠ

কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার যাত্রাপুর ইউনিয়নের চরযাত্রাপুর গ্রামে ব্রহ্মপুত্রের অসময়ের ভাঙনে অর্ধশত পরিবার গৃহহীন হয়ে পড়েছে। ঝুঁকির মুখে রয়েছে আরো ৪০টি পরিবার। ভাঙনের তীব্রতায় টিকতে না পেরে অনেকেই আগেভাগেই ঘরবাড়ি সরিয়ে নিয়েছে।

ভাঙনের শিকার দিনমজুর রাশেদুল ইসলাম জানান, গত এক বছরে তিন দফা ভাঙনের শিকার হয়েছেন তিনি। বন্যার সময় তিন হাজার টাকায় জায়গা ভাড়া নিয়ে ঘর তুলেছেন। এখন সেই জায়গাও ভেঙে যাচ্ছে। এখন কোথায় যাবেন ঠিক করেননি। এই গ্রামের শহিদুল ইসলাম কোথাও ঠিকানা নিশ্চিত করতে না পেরে ঘর ভেঙে খোলা আকাশের নিচে টাঙিয়ে রেখেছেন। তিনি বলেন, ‘রাইতের বেলা কাছার পড়ে ধুম ধুম করি। হামার চোখোত নিন্দ আইসে না।’

ভাঙনের শিকার খলিলুর রহমান ও শামসুজ্জামান জানান, সাধারণত বর্ষায় ব্রহ্মপুত্রের ভাঙন দেখা দিলেও এবার উল্টো চিত্র। দুই মাস ধরে এ এলাকায় ব্রহ্মপুত্রের ভাঙন তীব্র রূপ নিয়েছে। চরে আবাদি হয়ে ওঠা জমিজিরাত ভেঙে অনেকেই নিঃস্ব হয়ে যাচ্ছে। ভাঙনের কবলে পড়েছে যাত্রার নৌঘাট ও কয়েক শ বিঘা আবাদি জমি। তবে এখানে পানি উন্নয়ন বোর্ডের তীর প্রতিরক্ষার কাজ না থাকায় ভাঙন প্রতিরোধে কোনো কার্যক্রম নেই।

যাত্রাপুরের ইউপি চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী বলেন, ‘ভাঙনের শিকার পরিবারগুলোর তালিকা উপজেলা পরিষদে জমা দিয়েছি।’

কুড়িগ্রাম সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিলুফা ইয়াছমিন জানান, ইউপি চেয়ারম্যানের প্রতিবেদন পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা